চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০

২৮ এপ্রিল, ২০১৯ | ২:২৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাদকসেবী ও বখাটেদেরউৎপাতে অতিষ্ঠ জনগণ

১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া

পশ্চিম বাকলিয়ার অলি-গলিতে বখাটেদের উৎপাত বেড়েছে। বিশেষ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা উৎপাতের শিকার হচ্ছে। বগার বিলকেন্দ্রিক সন্ত্রাসী ও বখাটেরা বিভিন্ন স্থানে আড্ডা দিয়ে স্কুল-কলেজের ছাত্রীদের নানাভাবে উত্ত্যক্ত ও মহিলাদের ব্যাগ ছিনতাইয়ের অভিযোগ রয়েছে।
এলাকাবাসী জানায়, অলিগলি, মোড়ে মোড়ে এবং আবাসিক এলাকা সংলগ্ন জায়গায় আড্ডা বসায় বখাটেরা। বখাটেদের উৎপাতে ও ভয়ে মেয়েরা রাস্তায় চলাফেরা করতে তটস্থ থাকে। বিশেষ করে স্কুল কলেজের মেয়েরা প্রতিনিয়ত হয়রানি ও উত্ত্যক্তের শিকার হচ্ছে। এছাড়াও রাস্তায় বসে মাদকের আড্ডা দেওয়া হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাকলিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম গেট, সবুজবাগ আবাসিক এলাকার বাকলিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন গলি, রসুলবাগ আবাসিক এলাকার ‘এ’ ব্লক গলির শেষ প্রান্ত, ডিসি রোড ও দেওয়ান বাজার এলাকার কয়েকটি গলি, বগারবিল রাস্তা, বগারবিল রোকেয়া গলি, শহীদ শাহ রোডের ল্যা-মার্ক আবাসিকের সামনে, শাহ আমানত হাউজিং সোসাইটি এলাকা, রাহাত্তারপুল ফেস্টিবেল জোন গলি, চান্দাপুকুর পাড় এলাকায় বখাটেদের দৌরাত্ম্য দিন দিন বেড়ে চলেছে।
চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ, মহসীন কলেজ এবং চকবাজার, বাকলিয়া এলাকায় অবস্থিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোটিং সেন্টারে পড়াশোনা করা ছাত্র-ছাত্রীদের অধিকাংশ বাকলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করে। দূর-দূরান্তের শিক্ষার্থীদের অনেকেউ এসব এলাকায় মেস ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। রসুলবাগ আবাসিক, শহীদ শাহ রোড এলাকায় শিক্ষার্থীদের মেসের সংখ্যা বেশি।
তরুণ শিক্ষার্থীদের (ছেলে-মেয়ে) একসঙ্গে চলাচলের সময় বখাটের রোষানলে পড়তে হয়। তরুণ-তরুণীদের ব্যাগ তল্লাশির নামে সর্বস্ব কেড়ে নেয়। প্রতিনিয়ত হেনস্তার শিকার হয়। ভয়-ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন ও টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেওয়া হয়।
কলেজ পড়–য়া ওই শিক্ষার্থী বলেন, পরিবার-পরিজন ত্যাগ করে দূর-দূরান্ত থেকে অনেক শিক্ষার্থী এই এলাকায় বসবাস করেন। কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য এলাকাটি অপেক্ষাকৃত ভালো। প্রাণের ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস করে না। তরুণেরা নেশাগ্রস্ত অপকর্মের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 257 People

সম্পর্কিত পোস্ট