চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

২৮ এপ্রিল, ২০১৯ | ২:২৩ পূর্বাহ্ণ

শিশুদের প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে : উপমন্ত্রী নওফেল

শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, শিশুরা আগামী দিনের রাষ্ট্রের অভিভাবক। শিশুদের প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। প্রত্যেক শিশুকে সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশে বেড়ে উঠার সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে। তাদের মাঝে মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত করে মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসার দীক্ষা দিতে হবে।
গত শুক্রবার চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে আয়োজিত জিনিয়াস মেধাবৃত্তির পুরস্কার ও শিশু উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। শিশুদের মেধা বিকাশে জিনিয়াস মেধাবৃত্তি পরীক্ষা সহায়ক ভূমিকা পালন করছে উল্লেখ করে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে হলে মেধার কোন বিকল্প নেই। বিশ্ববাসী এখন মেধাবীদের পূজা করে।
মন্ত্রী আরো বলেন, গতানুগতিক শিক্ষার পাশাপাশি আমাদেরকে কর্মমুখী শিক্ষার প্রতি বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। এই শিক্ষার্জনের মাধ্যমে বেকারত্ব দূর করা সম্ভব হবে। জিনিয়াস ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জিনিয়াস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক সরোজ আহমেদ। স্বাগত বক্তব্যে জিনিয়াস পরিচালক বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মেধাবী হিসেবে গড়ে তুলতে হলে চাপ প্রয়োগ করে নয়, তাদের বয়স, সামর্থ, অভিপ্রায় এবং অভিরুচির প্রতি সচেষ্ট থাকতে হবে। তবে সুস্থ এবং সুষ্ঠু প্রতিযোগিতার মাধ্যমেও শিশুদের মেধা বিকাশ ঘটানো সম্ভব।
উৎসবে বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কলা ও মানববিদ্যা বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. সেকান্দর চৌধুরী বলেন, তোমরা বড় হও, মানুষ হও, মানবিক হও, মহৎ হও। বঞ্চিত, নিরন্ন, অভাবী মানুষকে বুকে ঠাঁই দিয়ে এই দেশকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোল।
চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আইয়ূব খান বলেন, আজকের শিশুরা আগামী দিনের দেশের ভবিষ্যত। এদেরকে নানা উৎসাহমূলক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এগিয়ে নিতে হবে। চট্টগ্রাম ওয়াসার বোর্ড মেম্বার এম আর আজিম বলেন, আগামী দিনের ভবিষ্যত প্রজন্মকে সঠিকভাবে বেড়ে উঠার পরিবেশ নিশ্চিত করতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে। সাংবাদিক হিমাদ্রী রাহা, সুশান্ত শীল ও বিলকিছ আহমেদ এর যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা (ক্যাপ্টেন) আহমেদ কবির ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ রফিক উদ্দিন বাবুল ভূঁইয়া, বাংলাদেশ মানবাধিকার কাউন্সিল চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, জিনিয়াস ভাইস চেয়ারম্যান বিপ্লব মিত্র, ট্যুর ভিশন লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক লায়ন আবসার হোছাইন চৌধুরী, থাই ফুড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাইকেল দে, টমোরো হোমস লি. এর চেয়ারম্যান অনুপ কুমার রায় প্রমুখ।
সবশেষে প্রধান অতিথি বৃত্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রায় ৪ শত জন কৃতী শিক্ষার্থীদের হাতে সনদ, ক্রেস্ট, নগদ অর্থ ও শিক্ষা উপকরণ পুরস্কার হিসেবে তুলে দেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 350 People

সম্পর্কিত পোস্ট