চট্টগ্রাম শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

পেঁয়াজের বাজারে নামছে ৪ গোয়েন্দা সংস্থা

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ৬:২০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে এসেছে ২৫৮ টন পেঁয়াজ

গতকাল সোমবার ও আজ মঙ্গলবার চট্টগ্রাম বন্দরে মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে নয় কনটেইনারে ২৫৮ টন পেঁয়াজ এসেছে। এর আগে টেকনাফ স্থলবন্দর দিয়ে দুই চালানে ৫৭ মেট্রিক টন পেঁয়াজ খালাস হয়েছিল। ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের পর ৩১৫ টনের চালান আমদানি হয়েছে বিকল্প দেশ থেকে। বন্দরে আসা ২৫৮ টনের চালানের মধ্যে ১৭০ টন খালাসের ছাড়পত্র নিয়েছেন দুজন আমদানিকারক।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, পেঁয়াজের প্রথম চালানটি এনেছে কায়েল স্টোর। ভারত রপ্তানি বন্ধের আগেই গত ৩১ আগস্ট প্রতিষ্ঠানটি মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি নিয়েছিল। এ ছাড়া পাকিস্তান থেকে গ্রিন ট্রেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান ১১৬ টন পেঁয়াজ আমদানি করেছে। প্রতিষ্ঠানটি গত ৬ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি নিয়েছিল।
তবে ভারত রপ্তানি বন্ধের পর যেসব চালান আমদানির অনুমতি নেওয়া হয়েছিল সেগুলো এখনো বন্দরে এসে পৌঁছায়নি। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে এসব চালান বন্দরে এসে পৌঁছার কথা রয়েছে বলে আমদানিকারকেরা জানিয়েছেন।
বন্দর সচিব ওমর ফারুক জানান, পেঁয়াজের চালান খালাসে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে দুই কন্টেনারের চালান খালাস নেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের তথ্য মতে, ১২টি থেকে মোট ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৫৪ টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য ইতিমধ্যে আমদানিকারকরা ৩২২টি আইপি (আমদানি অনুমতিপত্র) নিয়েছে। যেসব দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির আইপি নেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে- চীন, মিশর, তুরস্ক, মিয়ানমার, নিউজিল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), ভারত ও পাকিস্তান।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 126 People

সম্পর্কিত পোস্ট