চট্টগ্রাম রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ২:২৮ অপরাহ্ণ

আল-আমিন সিকদার

পূর্ণ যাত্রীর ট্রেনযাত্রা শুরু আজ

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে গত ২৫ শে মার্চ বন্ধ করে দেয়া হয় বাংলাদেশের গণপরিবহন ব্যবস্থা। একই সাথে বন্ধ রাখা হয় রেল যোগাযোগও। পরবর্তীতে দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে লকডাউন নির্দেশনা শিথিল করার পাশাপাশি চালু করে দেয়া হয় গণপরিবহন ও রেল যোগাযোগ। তবে শর্তজুড়ে দেয়া হয় স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের। বাস কিংবা রেল, দুটোতেই যাত্রী তোলা হবে মোট আসনের ৫০ শতাংশ। গণপরিবহনে নৈরাজ্য চলার কারণে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ভাড়া কমিয়ে বাড়ানো হয় যাত্রী তোলার পরিমাণ। সে অনুযায়ী বাসে এখন যাত্রী তোলা হচ্ছে পূর্বের মতই। করোনার এমন পরিস্থিতিতে পাশাপাশি যাত্রী বসানোর এ সিদ্ধান্ত নিয়ে নানা মহলে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। আজ থেকে দেশের প্রতিটি ট্রেনে বিক্রি হবে শতভাগ টিকিট।
রেলওয়ে সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার রেল ভবনে আয়োজিত এক সভায় পাশাপাশি আসনে যাত্রী বসানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ সংক্রান্ত রেলের দুটি প্রধান অঞ্চলে পাঠানো হয় প্রতিটি ট্রেনের পূর্ণ আসন বিক্রির সিদ্ধান্ত। যদিও রেল কর্মকর্তারা জানান, পূর্ণ আসন বিক্রির এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আগে মাঠ পর্যায়ের রেল কর্মকর্তাদের কাছ থেকে কোন প্রস্তাবনা চায়নি রেল ভবন। এমনকি রেল ভবনের এ সিদ্ধান্ত সম্পর্কে পূর্বে কিছু জানতেনও না তারা।

সূত্র আরও জানায়, টিকিট বিক্রির সিস্টেমেও আনা হয়েছে পরিবর্তন। ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকিটের অর্ধেক বিক্রি করা হত এপ এর মাধ্যমে এবং বাকি ২৫ শতাংশ কাউন্টারে। তবে আজ থেকে ট্রেনের পূর্ণ আসনের ৫০ শতাংশ মিলবে কাউন্টার ও বাকি টিকেট মিলবে অনলাইনে। অন্যদিকে টিকিট সংগ্রহ ও যাত্রা করতে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বাধ্যতামূলক করার যে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল সেটাতেও আনা হয়েছে পরিবর্তন। ‘টিকিট যার যাত্রা তার’ স্লোগান থেকে কিছুটা সরে এসেছে রেল। পরিবারের সকল সদস্যের জন্য এক এনআইডি থেকেই টিকিট সংগ্রহ করা যাবে বলে জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

এদিকে দীর্ঘ ৬ মাস পর রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রামের দোহাজারী-নাজিরহাট লাইনের ৪টি ট্রেন চালু হতে যাচ্ছে আজ থেকে। বিষয়টি নিশ্চিত করে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা স্নেহাশিস দাশ গুপ্ত পূর্বকোণকে বলেন, ‘৬ মাস পর কাল (বুধাবার) থেকে পূর্বের শিডিউল অনুযায়ী দোহাজারী-নাজিরহাট লাইনে ফের ট্রেন চালু হতে যাচ্ছে। তবে দোহাজারী লাইনে পূর্বের মত ২টি ট্রেন চললেও নাজিরহাটে কমেছে একটি ট্রেনের সংখ্যা। পূর্বে ২টি ডেমু ও একটি রেক ট্রেন চললেও এখন চলবে শুধু ডেমু ট্রেন ২টি।’

শতভাগ আসন বিক্রি সম্পর্কে জানতে চাইলে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলী পূর্বকোণকে বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বুধবার থেকে প্রতিটি ট্রেনের শতভাগ আসন বিক্রি হবে। প্রথম ৫ দিন এপে মিলবে ৫০ শতাংশ ও কাউন্টারে বাকি ৫০ শতাংশ টিকিট। এরপর থেকে আসন ফাঁকা থাকা সাপেক্ষে স্টেশনের কাউন্টার থেকেই টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন যাত্রীরা।’
এদিকে করোনাভাইরাসের মধ্যেই মন্ত্রণালয়ের এমন শতভাগ আসন বিক্রির সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানতে চাইলে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক সরদার শাহাদাত আলী পূর্বকোণকে বলেন, ‘রেল ভবন থেকে আজ সিদ্ধান্ত দেয়া হয় যাতে আগামীকাল (বুধবার) থেকে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের আওতাধীন প্রতিটি ট্রেনের শতভাগ আসন বিক্রি করা হয়। এ সিদ্ধান্ত আসার আগ পর্যন্ত এ বিষয় সম্পর্কে কিছুই জানানো হয়নি। এমনকি আমাদের কাছে কোন প্রস্তাবনাও জানতে চাওয়া হয়নি, আমরাও জানাইনি।’

টিকিট সংগ্রহে এনআইডি ব্যবহারের পরিবর্তন সম্পর্কে তিনি পূর্বকোণকে বলেন, ‘টিকিট যার যাত্রা তার, নিয়মে কিছুটা সংশোধন করা হয়েছে। কারণ, একজন ব্যক্তি তার পরিবার নিয়ে রেলে যাত্রা করতে গেলে তাকে আলাদাভাবে টিকিট সংগ্রহ করতে হত। কারণ, একটি পরিচয়পত্রে একাধিক টিকিট সংগ্রহ করা যাবে না। যাত্রীদের এমন বিড়ম্বনা থেকে রেহাই দিতে এ নীতিতে কিছুটা সংশোধন আনা হয়েছে। যাতে করে একটি পরিচয়পত্র দিয়েই পরিবারের সকল সদস্য যাত্রা করতে পারে। আর এ সুযোগ যেন কোন অসাধু ব্যক্তি কাজে লাগাতে না পারে সে বিষয়েও কড়া নজরদারি রাখা হবে।’

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 91 People

সম্পর্কিত পোস্ট