চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০২ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

কাপ্তাই ১০ শয্যার হাসপাতালে বৃষ্টি নামলেই দুর্ভোগ

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ৩:১১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, কাপ্তাই

কাপ্তাই ১০ শয্যার হাসপাতালে বৃষ্টি নামলেই দুর্ভোগ

১৩ হাজার মানুষের রোগমুক্তিতে সেবা দেয়ার জন্য প্রতিষ্ঠিত ‘কাপ্তাই ১০ শয্যার হাসপাতালটি’ এখন নিজেই অসুস্থ। দীর্ঘদিন যাবত সংস্কার না হওয়ায় হাসপাতালটির বর্তমান অবস্থা এমন জরাজীর্ণ, রোগীর আগেই প্রয়োজন হাসপাতালের চিকিৎসা। কাপ্তাই ছাড়াও পার্শ্ববর্তী উপজেলার রোগীরা হাসপাতালটিতে এসে ফিরতে হচ্ছে চিকিৎসা ছাড়াই।
সরেজমিনে দেখা যায়, হাসপাতালে রোগীর সেবাদানের প্রতিটি কক্ষ, এমনকি ডাক্তার, রোগী, কর্মচারীর থাকার আবাসস্থলেরও নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিটি কক্ষের ওপরের টিন নষ্ট হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতে ছিদ্র বেয়ে হাসপাতালজুড়ে সয়লাব হয় পানিতে। থাকে না রোগীর সেবা নেয়ার সামান্যতম পরিবেশ। পাশাপাশি ডাক্তারদের সেবা দিতেও পোহাতে হয় দুর্ভোগ।
স্থানীয়দের অভিযোগ, রাঙামাটি স্বাস্থ্য বিভাগ ও কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে হাসপাতালটি পরিচালিত হয়। হাসপাতালটিতে অবকাঠামোর পাশাপাশি রয়েছে ডাক্তার, নার্স, কর্মচারীর ব্যাপক সংকট। হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে একজন ডাক্তারের অবস্থান করার নিয়ম থাকলেও তা মানা হয় না।
অভিযোগ রয়েছে, সপ্তাহে একজন ডাক্তার ২/৩ বার কয়েক ঘণ্টার জন্য অবস্থান করে আবার চলে যায়। ইউনিয়নের কোন রোগী হঠাৎ মারা গেলেও মৃত্যু সনদ দেয়ার জন্য ডাক্তার পাওয়া যায় না। উপায়হীন হয়ে তাই রোগীকে ছুটতে হয় স্থানীয় ফার্মেসির পল্লী চিকিৎসকের দ্বারে।
চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রাহেলা বেগম, ইমতিয়াজ খাতুন, মো. ফরিদ উদ্দিন, নাহিদুল ইসলাম জানান, মরিচা ধরে চালের টিন নষ্ট হয়েছে। সংস্কার না করায় প্রভাব পড়েছে চালের বাটামেও (গাছের বাকল দিয়ে তৈরি প্রতিরোধক)। হালকা বৃষ্টি হলেই থাকে না হাসপাতালে দাঁড়ানোর মতো কোন অবস্থা। তাই জরুরিভাবে প্রয়োজন হাসপাতালটি মেরামত করা।
কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ আহমেদ চৌধুরী জানান, কাপ্তাইয়ের ১০ শয্যা হাসপাতালের বিভিন্ন সমস্যা ও সংস্কার নিয়ে দপ্তরে চিঠি দিয়ে জানিয়েছি। আশা করি, শীঘ্রই একটা ফলাফল পাওয়া যাবে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 87 People

সম্পর্কিত পোস্ট