চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ফিশিংবোটের ধাক্কায় সেন্টমার্টিনগামী স্পিডবোট ডুবি: নিহত ১, শিশু নিখোঁজ

৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ৫:০৭ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার সংবাদদাতা

ফিশিংবোটের ধাক্কায় সেন্টমার্টিনগামী স্পিডবোট ডুবি: নিহত ১, শিশু নিখোঁজ

টেকনাফের নাফনদীর সংলগ্ন খালের মুখে একটি ফিশিং ট্রলারের ধাক্কায় টেকনাফ থেকে ছেড়ে যাওয়া সেন্টমার্টিনগামী একটি স্পিডবোট উল্টে দুই বৃদ্ধা নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- সেন্টমার্টিন দ্বীপ পশ্চিম পাড়া এলাকার মরহুম আবদুল গফুরের স্ত্রী রশিদা বেগম (৬০) ও আব্দুল জলিলের স্ত্রী মেহেরুন নেছা (৭৫)। এই ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ৬ জন যাত্রী। নিখোঁজ রয়েছে ৭ বছর বয়সি সুমাইয়া নামে এক শিশু কন্যা।

আহতরা হলেন- টেকনাফ পৌরসভা নাইটং পাড়া এলাকার জাকারিয়ার পুত্র মো. সোহেল (৮), সেন্টমার্টিন পূর্ব পাড়া এলাকার জামাল হোসাইনের স্ত্রী বেগম (৬০) ও পশ্চিম পাড়া এলাকার মো. আমিনের পুত্র জোহারুন (১৫)।

জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর ৩টার দিকে টেকনাফ পৌরসভা লামার বাজার কাইয়ুকখালী ফিশিংঘাট থেকে দুই শিশুসহ ১১জন যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে একটি স্পিডবোট রওনা দেয়। এরপর স্পিডবোটটি টেকনাফ সদর বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন নাফনদীর প্রবেশ মুখে পৌঁছলে অপরদিক থেকে দ্রুত গতিতে আসা একটি ফিশিং ট্রলার যাত্রী বোঝাই স্পিডবোটটি ধাক্কা দেয়ার সাথে সাথে স্পিডবোটটি উল্টে গিয়ে যাত্রীরা সবাই নদীতে পড়ে যায়। উক্ত ঘটনায় ষাটোর্ধ্ব দুই বৃদ্ধা মহিলা মারা যায়। এ ঘটনায় শিশুকন্যা সুমাইয়া এখনো নিখোঁজ রয়েছে।

টেকনাফ সদর বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার আবদুর রাজ্জাক বলেন, খাইয়ুকখালী খাল ও নাফনদীর প্রবেশ মুখে একটি ফিশিংট্রলার ও যাত্রীবাহি একটি স্পিডবোটের সাথে ধাক্কা লেগে স্পিডবোটটি উল্টে যায়। এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় হতাহতদের উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া ব্যবস্থা করা হয়।

এ বিষয়ে সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনে যাওয়ার পথে নাফনদীর প্রবেশ মুখে যাত্রীবাহী স্পিডবোটটিকে সাগর থেকে মাছ শিকার করে আসা একটি ফিশিং ট্রলার ধাক্কা দিলে স্পিডবোটটি উল্টে গেলে যাত্রীরা ডুবে যায়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতাল ও বেসরকারি হাসপাতাল মেরিন সিটিতে নিয়ে যাওয়া হয়। এতে দুইজন নিহত হয়।

তিনি আরো জানান, দুর্ঘটনায় কবলিত স্পিডবোটটির মধ্যে আমার শাশুড়ি ও নাতনি ছিল। নাতনি সুমাইয়া এখনো নিখোঁজ রয়েছে। শাশুড়ির অবস্থা অবনতি হওয়ায় কক্সবাজার হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

পূর্বকোণ/আরফাতুল-এএ-আরপি

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 75 People

সম্পর্কিত পোস্ট