চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কাঁচা মরিচ ও ধনে পাতার ডাবল সেঞ্চুরি
কাঁচা মরিচ ও ধনে পাতার ডাবল সেঞ্চুরি

৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ২:৩৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

কাঁচা মরিচ ও ধনে পাতার ডাবল সেঞ্চুরি

ডাবল সেঞ্চুরি করেছে কাঁচা মরিচ ও ধনে পাতা। ডিমের দামও বাড়তি। একশ টাকার বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে টমেটোও। এছাড়া চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে বাজারের সবগুলো সবজি। তবে দাম কমেছে মাছ ও মুরগির। গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর বাজারগুলোতে দেখা যায়, এক কেজি কাঁচা মরিচ বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২শ’ টাকায়। ধনে পাতার কেজিও ২শ’ টাকা, টমেটো ১শ’ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে এক কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছে ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে প্রায় ৩০ টাকা। তেমনি ধনে পাতায়ও প্রতি কেজিতে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা দাম বেড়েছে। ডিমের দাম বেড়ে প্রতি ডজন ১১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়, কচুরমুখী ৫০ থেকে ৬০ টাকায়, বড় কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, ঝিঙে ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, তিতাকরলা ৬০ টাকা, ঢেঁড়শ ৫০ টাকা, শসা ৪০ টাকা, গাজর ৬০ টাকা, বেগুন ৭০ থেকে ৮০ টাকা, লাউ ৪০ টাকা, কুমড়ো ৪০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, মুলা ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও এক আঁটি পুঁইশাক ২০ টাকা, পাটশাক ২০, কুমড়ো ও লাউ শাক ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এসব শাক ও সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
এদিকে, মাছের বাজারে রুপালি ইলিশের ছড়াছড়ি। শুধু বাজারেই নয়, অলিগলিতেও মাছ নিয়ে যাচ্ছে বিক্রেতারা। গত কয়েক দিন ধরে সাগরে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। যার ফলস্বরূপ বাজার ইলিশে ভরপুর। তবে সামুদ্রিক ও দেশীয় চাষের মাছ অনেক কম বললেই চলে। বাজারে ৮শ’ গ্রামের একটা ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬শ’ টাকায়, ৬শ’ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৪শ’ টাকায়। লইট্যা আকার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়, তবে একসাথে দুই কেজি কিনলে ১২০ টাকায় বিক্রি করছে। সামুদ্রিক ছোট চিংড়ি এক কেজি ২শ’ থেকে ২৩০ টাকায়, বড় চিংড়ি সাড়ে ৫শ’ টাকায় ও পুকুরের চিংড়ি বিক্রি হচ্ছে ৩শ’ টাকা দামে। পাঙ্গাস প্রতি কেজি ৯০ থেকে ১শ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
চকবাজারের ফুলতলায় ছোট, বড় ও মাঝারি সাইজের অনেকগুলো ইলিশ নিয়ে ডালা সাজিয়ে বসেছেন মিলন দাশ। তাঁর চারপাশ ঘিরে দাঁড়িয়ে আছে প্রায় ৯-১০ জন নারী ও পুরুষ ক্রেতা। সবাই ইলিশের দাম হাঁকাচ্ছেন। অনেকে কিনেও নিয়ে যাচ্ছে। আবার কেউ কেউ দর-দামে না হলে খালি হাতে ফিরছেন। তবে বেশিরভাগ ক্রেতাই মাছ নিয়ে ঘরে ফিরছেন। এখানে ২শ’ টাকা দামের ছোট ইলিশ থেকে ৬শ’ টাকা দামের বড় ইলিশও আছে।
নাজমুল হক নামে এক ক্রেতা বলছেন, বাজারে প্রচুর ইলিশ দেখা যাচ্ছে। তবে দাম এতোটাও কম নয়। বিক্রেতারা দাম ছাড়ছে না। একই ওজনে একটা ইলিশ সব বিক্রেতা একই দাম বলছে। এটা এক প্রকার সিন্ডিকেট। তবুও দুইটা কিনেছি। কারণ মৌসুমের বাইরেতো দাম আরো বেশি। আমি বড় থেকে একটা নিয়েছি। মনে হচ্ছে পেটে ডিম আছে। বাচ্চারা ইলিশের ডিম খেতে পছন্দ করে।
ব্রয়লার মুরগির মধ্যে ছোট আকারের এক কেজি ব্রয়লার মুরগি ১২০ টাকা, সাইজে বড় ব্রয়লার মুরগি ১১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সোনালি এক কেজি ২৬০ টাকা ও পাকিস্তানি লেয়ার মুরগি ২৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 111 People

সম্পর্কিত পোস্ট