চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

সিনহা হত্যায় প্রধান আসামি লিয়াকতের দায় স্বীকার

৩০ আগস্ট, ২০২০ | ৫:৫৮ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার সংবাদদাতা

সিনহা হত্যায় প্রধান আসামি লিয়াকতের দায় স্বীকার

কক্সবাজারের টেকনাফে সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা রাশেদ খান হত্যা মামলায় দোষ স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী। তিনি মামলাটির প্রধান আসামি। তার গুলিতেই সিনহা নিহত হন বলে অভিযোগ রয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, রোরবার (৩০ আগস্ট) বেলা পৌনে ১২টার দিকে তাকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে জবানবন্দি দেয়ার জন্য তোলা হয়। জবানবন্দি শেষে তাকে বিকাল সাড়ে ৪ টায় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের সিনিয়র এএসপি খায়রুল ইসলাম জানান, দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিতেই লিয়াকতকে আজ রবিবার আদালতে তোলা হয়। আদালতের কাছে পুলিশের এই কর্মকর্তা সত্যটাই তুলে ধরেছেন বলে আশা প্রকাশ করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

এর আগে গত ২৬ আগস্ট আলোচিত এই মামলায় ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন অন্যতম আসামি আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্য কনস্টেবল আব্দুল্লাহ। লিয়াকত আলীসহ মামলাটিতে দুই আসামি দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিলেন।

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মারিশবনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর এপিবিএনের তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান। গত ৫ আগস্ট এ ঘটনায় কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা করেন সিনহা মো. রাশেদ খানের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এতে টেকনাফ থানার বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ পুলিশের নয়জনকে আসামি করা হয়। এই মামলায় এখন পর্যন্ত পুলিশের সাতজন, এপিবিএনের তিনজন এবং স্থানীয় তিনজন বাসিন্দা (পুলিশের মামলার সাক্ষী) গ্রেপ্তার হয়েছেন। ১৩ আসামির সবাই কারাগারে আছেন। দফায় দফায় তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব। আদালতের নির্দেশে র‌্যাব মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 98 People

সম্পর্কিত পোস্ট