চট্টগ্রাম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

২১ আগস্ট, ২০২০ | ৭:৩৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

একাদশে ভর্তি: প্রথম ধাপে ১৩ লাখ ৪২ হাজার আবেদন, চট্টগ্রামে ১ লাখ ২৪ হাজার

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বিলম্বিত একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমের প্রথম পর্যায়ে ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৭১৩ জন শিক্ষার্থীর আবেদন জমা পড়েছে। গত ৯ অগাস্ট সকাল ৭টা থেকে ২০ অগাস্ট রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত এসব শিক্ষার্থী অনলাইনে আবেদন করেন বলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সিস্টেম এনালিস্ট মঞ্জুরুল কবীর আজ শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছেন।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। এদের মধ্যে কারিগরি বোর্ড থেকে পাস করেছেন ৯৫ হাজার ৮৯৫ জন। ঢাকা বোর্ড কেন্দ্রীয়ভাবে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিতে যে কার্যাক্রম চালাচ্ছে, তার মাধ্যমেই আবেদন করতে হচ্ছে দেশের নয়টি সাধারণ বোর্ড এবং মাদ্রাসা বোর্ড থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের। আর কারিগরি বিভাগ থেকে পাস করা শিক্ষার্থীদের কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তির আবেদন করতে হবে কারিগরি বোর্ডের অধীনে। এই হিসাবে কারিগরির শিক্ষার্থী বাদে দেশে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য আবেদনের যোগ্য শিক্ষার্থী আছে ১৫ লাখ ৯৪ হাজার ৬২৮ জন। তাদের মধ্যে ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৭১৩ জন প্রথম পর্যায়ে আবেদন করেছে।
অর্থাৎ, মাধ্যমিক পাস করা দুই লাখ ৫১ হাজার ৯১৫ জন শিক্ষার্থী এখনও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার আবেদন করেনি।

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক  জানান, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত ২৭২টি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আসন রয়েছে প্রায় ১ লাখ ৫৬ হাজার। তিনি বলেন, এসব আসনের বিপরীতে এইবার একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে ৬ লাখ ৭৫ হাজার ২৪৫টি আবেদন জমা পড়েছে। ১ লাখ ২৩ হাজার ৯০৩ জন শিক্ষার্থী অনলাইনে এসব আবেদন করেছে।

ঢাকা বোর্ডের একজন কর্মকর্তা বলেন, এখনও যারা আবেদন করেনি, তারা আরও দুই দফায় আবেদনের সুযোগ পাবে। তবে কোনো বছরই মাধ্যমিক উত্তীর্ণ শতভাগ শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করে না।“যারা দেশের বাইরে পড়তে যাবে, তারা সাধারণত আবেদন করে না। এছাড়া যারা আশানুরূপ ফল না করায় পরেরবার আবার এসএসসিতে বসবে, তারাও কলেজে ভর্তির আবেদন করে না।”

এবার শুধু অনলাইনের (www.xiclassadmission.gov.bd) মাধ্যমে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করেছে শিক্ষার্থীরা। একজন শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে পাঁচটি কলেজের পছন্দক্রম জানিয়ে আবেদন করতে হচ্ছে। সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে আবেদন করার সুযোগ রাখা হয়েছে। শিক্ষার্থীর মেধা এবং তার পছন্দক্রম বিবেচনা করে তাকে নির্দিষ্ট কলেজে ভর্তির জন্য মনোনীত করা হবে।

প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে আগামী ২৫ অগাস্ট রাত ৮টায়। প্রথম তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ২৬ থেকে ৩০ অগাস্টের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন (যে কলেজের তালিকায় নাম আসবে ওই কলেজেই যে শিক্ষার্থী ভর্তি হবেন তা এসএমএসে নিশ্চিত করা) করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।৩১ অগাস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন নেওয়া হবে। পছন্দক্রম অনুযায়ী প্রথম মাইগ্রেশনের ফল এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়।

৫-৬ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।৭-৮ সেপ্টেম্বর তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন নিয়ে পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল এবং তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে ১০ সেপ্টেম্বর। ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত তৃতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে। ওই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে। ১৩ সেপ্টেম্বর রাত কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে। আর ১৩ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শিক্ষার্থীদের কলেজে ভর্তি হতে হবে বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড জানিয়েছে।

২০১৫ সাল থেকে ঢাকা বোর্ডের মাধ্যমে কেন্দ্রীয়ভাবে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হচ্ছে।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 256 People

সম্পর্কিত পোস্ট