চট্টগ্রাম বুধবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

অকেজো সাতকানিয়ার গাটিয়াডেঙ্গা সেতু

২১ আগস্ট, ২০২০ | ৫:৫১ অপরাহ্ণ

সুকান্ত বিকাশ ধর, সাতকানিয়া

সংযোগ সড়ক হয়নি ৩ বছরেও

অকেজো সাতকানিয়ার গাটিয়াডেঙ্গা সেতু

সংযোগ সড়কের অভাবে অকেজো হয়ে পড়ে আছে সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়ন ও আমিলাইষ ইউনিয়নের হিলমিলি অংশে ডলু নদীর ওপর নির্মিত গাটিয়াডেঙ্গা ব্রিজটি। ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার ৩ বছর হলেও কোন সুফল ভোগ করতে পারছে না ৫ ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার লোক।

জানা যায়, ২০১৬ সালে ঢালাই সেতু নির্মাণের জন্য বরাদ্দ হলে অক্টোবর মাসে স্থানীয় সাংসদ অধ্যাপক ড. আবু রেজা নদভী ব্রিজটির নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। চন্দনাইশ উপজেলার কাজলি-কাশেম এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ২০১৭ সালের শেষের দিকে ব্রিজের নির্মাণকাজ শেষ করেন। অন্যদিকে, ব্রিজটি নির্মিত হওয়ায় এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের আশা পূরণ হলেও শুধুমাত্র সংযোগ সড়কের অভাবে যাতায়াত নির্বিঘ্ন না হওয়ায় এখনও পর্যন্ত সিড়ি দিয়ে পায়ে হেঁটে অনেক ভোগান্তি সয়ে ব্রিজের ওপর দিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে লোকজনকে। ব্রিজ নির্মাণের পর জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সংযোগ সড়কের জন্য বিভিন্ন স্থানে ধর্ণা দিয়েও সুফল পায়নি। এভাবেই পার হয়েছে প্রায় ৩ বছর। বর্তমানে সড়ক ও জনপথ এবং এলজিইডি উভয় বিভাগ একে অপরকে দোষারোপ করছেন সংযোগ সড়ক তৈরির ক্ষেত্রে। দুই বিভাগের রশি টানাটানিতেই সংযোগ সড়ক তৈরি না হওয়ায় দুর্ভোগের অবসান হচ্ছে না এলাকাবাসীর।

এ ব্যাপারে আমিলাইষ ইউপি চেয়ারম্যান এ.এইচ.এম হানিফ ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. সোলাইমান বলেন, অনেক প্রত্যাশার পর ব্রিজটি নির্মাণ হয়েছে। এলজিইডি নাকি সড়ক বিভাগ কারা সংযোগ সড়ক তৈরি করবে সেটা এলাকাবাসীর দেখার বিষয় নয়। অতি শীঘ্রই যাতায়াতের সুবিধার জন্য সংযোগ সড়কটি খুবই জরুরি এবং এটি ৫ ইউনিয়নবাসীর প্রাণের দাবি।

এ ব্যাপারে দোহাজারী সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহ ব্রিজটি তাদের বিভাগ নির্মাণের কথা স্বীকার করলেও সংযোগ সড়ক তৈরির কাজ তাদের নয় উল্লেখ করে পূর্বকোণকে বলেন, সংযোগ সড়কের জায়গাটি হচ্ছে এলজিইডির অধীনে। সেজন্য সংযোগ সড়কের কাজটিও এ বিভাগের করে দেয়ার কথা।

সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর বক্তব্যের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সাতকানিয়া উপজেলা প্রকৌশলী পারভেজ সারওয়ার হোসেন পূর্বকোণকে বলেন, এ ব্রিজটির সংযোগ সড়ক যে জায়গায় হবে, সে জায়গার মালিক এলজিইডি নয়। এছাড়া সড়ক বিভাগের কাছ থেকে ভূমি অধিগ্রহণের জন্য কোন লিখিত প্রস্তাবও আমরা পাইনি। আর সড়ক ও জনপথ বিভাগের তৈরিকৃত ব্রিজের এপ্রোচ সড়ক এলজিইডি করে দেবে, এটি আশা করাটাই তাদের সমীচীন নয়।

অপরদিকে এলাকাবাসী বলছেন, বিভাগ আমরা বুঝি না, সংযোগ সড়ক তৈরি করে ব্রিজটিকে যাতায়াতের উপযোগী করে তোলাই তাদের প্রাণের দাবি।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 156 People

সম্পর্কিত পোস্ট