চট্টগ্রাম শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২০

১৫ জুলাই, ২০২০ | ৫:২৩ অপরাহ্ণ

রাঙ্গুনিয়া সংবাদদাতা

ধর্মানুভূতিতে আঘাত ও উস্কানির অভিযোগ

ব্লগার আসাদ নুরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

অনলাইন মিডিয়ার মাধ্যমে ধর্মানুভূতিতে আঘাত, মানহানি ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থী কার্যক্রম পরিচালনার অভিযোগে ব্লগার আসাদ নুরের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

‘আসাদ নুর’স ব্লগ’ নামের আইডি থেকে এ ধরণের ভিডিও প্রচার করা হয় ১৩ জুন সোমবার। ব্লগার আসাদুজ্জামান নুর (৩৮) বরগুনা জেলার আমতলি উপজেলার উত্তর টিয়াখালি গ্রামের তফাজ্জল হোসেনের পুত্র। রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শিমুল দাশ গুপ্ত বাদি হয়ে মামলাটি করেন।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) রাতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি রুজু করা হয়। মামলায় উস্কানিমূলক ভিডিও বার্তাটিতে যারা কমেন্ট ও শেয়ার করে প্রচার করেছেন তাদেরও অভিযুক্ত করা হয়েছে।

এর আগে ছাত্রলীগ নেতা শিমুল দাশ গুপ্তের মোবাইলে হেয় প্রতিপন্ন ও আপত্তিকর অডিও বার্তাও পাঠান ব্লগার আসাদ নুর। মামলাটিতে সাক্ষি করা হয়েছে অভিজিত তালুকদার বড়ুয়া পাভেল, বাবলা তালুকদার ও মাসুদ পারভেজকে।
মামলার অভিযোগে জানা যায়, ইসলাম ধর্ম, মুসলমান জাতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে নিয়ে ফেসবুক পেইজে উস্কানিমূলক ও মর্যাদাহানিকর মন্তব্য করে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও অটুট অবস্থানকে কলুষিত করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে ‘আসাদ নুরস ব্লগস’। আসাদুজ্জামান নুর ও তার সহযোগিরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভিডিও তৈরী ও শেয়ার করে রাঙ্গুনিয়ায় বৌদ্ধ সমাজ ও মুসলমানদের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন বিনষ্ট করার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন।
মামলার বাদি শিমুল গুপ্ত বলেন, ব্লগার আসাদ নুর ভিডিও বার্তায় রাঙ্গুনিয়ায় আরেকটা ২০১২ সালের রামু ট্র্যাজেডি সৃষ্টির উস্কানি দেন। তিনি বিভিন্ন সময়ে ভিডিও বার্তায় ইসলাম ও মুসলমানদের নিয়ে নানা কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। আমার হোয়টসএপেও আপত্তিকর অডিও বার্তা পাঠান। তার উস্কানিমূলক এসব ভিডিও বার্তার কারণে রাঙ্গুনিয়ায় বৌদ্ধ ও মুসলমান সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। আসাদ নুর ও সহযোগীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।
এছাড়া, রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি (তদন্ত) ব্লগার আসাদ নুরের বিরুদ্ধে মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগটি তদন্ত করা হচ্ছে। এধরণের উস্কানিমূলক কর্মকান্ড যারা শেয়ার ও প্রচার করে উত্তেজনা ছড়াচ্ছেন তারাও আইনের আওতায় আসবে।

পূর্বকোণ/জিগার-এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 555 People

সম্পর্কিত পোস্ট