চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

১৪ জুলাই, ২০২০ | ৭:২১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনা-পাহাড় ধসের শঙ্কা, ৫ আগস্ট হচ্ছে না চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন

নির্বাচন কমিশন (ইসি) চলমান করোনা পরিস্থিতি এবং পাহাড় ধসের আশঙ্কায় নির্ধারিত সময় ৫ আগস্টের মধ্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিবকে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) কমিশনের উপ-সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত ভোট করতে না পারার সিদ্ধান্তের একটি চিঠি পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

সিটি করপোরেশনের আইন অনুযায়ী, মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্ববর্তী ১৮০ দিনের মধ্যে ভোট অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। সে হিসেবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়াদ আগামী ৫ আগস্ট শেষ হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বর্তমান মেয়াদ শেষ হলেই প্রশাসক নিয়োগ করবে সরকার।

অবশ্য এই সময়ের মধ্যে নির্বাচন করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, গত ২৯ মার্চ এই সিটি করপোরেশনের ভোটের দিন ছিল। কিন্তু এরই আগে দেশে করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে ওই নির্বাচন স্থগিত করা হয়। একই দিনে বগুড়া-১ এবং যশোর-৬ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও দুটি নির্বাচনও স্থগিত করা হয়েছিল। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে করোনা পরিস্থিতিতেও আজ ১৪ জুলাই ওই দুটি আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হল।

স্থানীয় সরকার বিভাগে পাঠানো নির্বাচন কমিশনের চিঠিতে বলা হয়, চলতি বছরের ২৯ মার্চ তারিখে নির্ধারিত তারিখে দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত কারণে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছিল। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি অব্যাহত থাকায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং অতিবৃষ্টি ও পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কা বিবেচনায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়াদকালের মধ্যে অর্থাৎ আগস্টের ৫ তারিখের মধ্যে নির্বাচন আয়োজন করা সম্ভব হবে না বলে নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছে। বিষয়টি নির্দেশক্রমে অবহিত করা হল।

নির্বাচন কমিশনের চিঠি পাওয়ার বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম নিশ্চিত করে বলেন, আমরা কমিশনের চিঠি পেয়েছি। আইন অনুযায়ী নির্ধারিত সময় শেষ হলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হবে।

সিটি করপোরেশন আইন অনুযায়ী, মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে করপোরেশন ভেঙে যাবে। এক্ষেত্রে ওই করপোরেশনে প্রশাসক নিয়োগ করা হবে।

আইনে বলা আছে, নতুন কোনো সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠা করা হলে অথবা কোনো সিটি করপোরেশন বিভক্ত করা হলে অথবা কোনো সিটি করপোরেশন মেয়াদোত্তীর্ণ হলে সরকার সিটি করপোরেশন গঠিত না হওয়া পর্যন্ত তার কার্যাবলী সম্পাদনের উদ্দেশ্যে সরকার একজন উপযুক্ত ব্যক্তি বা প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিযুক্ত কর্মকর্তাকে প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করবে।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 259 People

সম্পর্কিত পোস্ট