চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২০

১১ জুলাই, ২০২০ | ৬:১০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নকল স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিক্রি : জমজম কেমিক্যাল সিলগালা

নকল সুরক্ষা সামগ্রীর বিক্রির অপরাধে নগরীর জেল রোডের জমজম কেমিক্যাল নামের একটি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।  আজ শনিবার ( ১১ জুলাই)  জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুকের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয় । এসময় নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রয় ও মানুষের সাথে প্রতারণার দায়ে পাশ্ববর্তী মানিক এন্টারপ্রাইজের মালিককে  বিশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জানা গেছে , নগরীর জেল রোডে অবস্থিত মানিক এন্টারপ্রাইজ ও জমজম কেমিক্যাল  নামক দুটি  প্রতিষ্ঠানে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রি করে আসছে। যার কারণে নগর গোয়েন্দা শাখার নজরদারীর মাধ্যমে তাদের  ব্যাপারে খোঁজ-খবর নিয়ে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। ক্রেতা সেঁজে জমজম ক্যামিকেল এন্ড পারফিউমারী থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিতে তাদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে দোকান মালিক জানান হ্যান্ড স্যানিটাইজার তিনি সরবরাহ করতে পারবেন।  যার জন্য  অগ্রিম টাকা দিয়ে ৮০ লিটার হ্যান্ড স্যানিটাইজারের অর্ডারও দেওয়া হয়। কিন্তু সরবরাহ করতে গেলেই গড়িমসি করতে থাকেন। তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা কারখানায় কাস্টমারকে আসতে নিরুৎসাহিত করতে থাকেন। তিনি ৮০ লিটার স্যানিটাইজার দিবেন তার বেঁধে দেওয়া নির্দিষ্ট জায়গায় বা কাস্টমারের ঠিকানায়। যার ফলে ৮০ লিটার হ্যান্ড স্যানিটাইজার সরবরাহ করতে এলে হাতেনাতে ধরা হয় মানিক এন্টারপ্রাইজের মালিককে।

মানিক এন্টারপ্রাইজের মালিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে স্বীকার করেন যে তিনি জমজম কেমিক্যাল ও পারফিউমারীর কাছে স্পিরিট ও মিথানল বিক্রি করেন ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রয়ে সহায়তা করেন ও নিজেও বিক্রি করেন । এদিকে জমজম কেমিক্যালের মালিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের খবর পেয়ে দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যায়। তিনি কারখানায় তৈরী নকল সুরক্ষা সামগ্রী বিভিন্ন পন্থায় বিক্রি করে আসছেন। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তিনি অর্ডার সংগ্রহ করেন ও নির্দিষ্ট জায়গায় সরবরাহ করেন। তিনি বিভিন্ন জেলায় ট্রাকের মাধ্যমে ড্রাম ভর্তি স্যানিটাইজার সরবরাহ করেন। দোকান তালা দিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় জমজম কেমিক্যাল ও পারফিউমারী দোকানটি সিলগালা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক জানান, গোয়েন্দা নজরদারীর মাধ্যমে জেল রোড এলাকায় নকল সুরক্ষা সামগ্রী বিক্র‍য়ের কারখানার অনুসন্ধান করে দুটি দোকানকে শাস্তির আওতায় আনা হয়। নগরীর বিভিন্ন এলাকায় কিছু অসাধু ব্যক্তি অতিরিক্ত লাভের আশায় নিজেরাই বিভিন্ন প্রকার কেমিক্যাল সামগ্রী মিশ্রণের মাধ্যমে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করে বাজারজাত করে আসছে যা মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী নিয়ে ভেজাল বা নকল করতে উদ্যত অসাধুদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে এবং অনেককেই কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে।  গোয়েন্দা নজরদারীর মাধমে বাকীদের ব্যাপারেও খোঁজ নেয়া হচ্ছে। যাদেরকেই এসব অনিয়মের সাথে জড়িত পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং এ ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানে ছিলেন এনএসআই নগর গোয়েন্দা শাখা ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ওষুধ তত্ত্বাবধায়ক মো কামরুল হাসান।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 204 People

সম্পর্কিত পোস্ট