চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

চকরিয়ায় অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিরানহা

৭ জুলাই, ২০২০ | ১০:০৭ অপরাহ্ণ

চকরিয়া-পেকুয়া প্রতিনিধি

চকরিয়ায় অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিরানহা

কক্সবাজারের চকরিয়ায় প্রকাশ্যে ‘থাই রুপচাঁদা’ নাম দিয়ে অবাধে বিক্রি হচ্ছে বিক্রয় নিষিদ্ধ মাংসাশী রাক্ষুসে মাছ পিরানহা। দেশীয় মাছ ও অন্যান্য জলজ জীবকূলের জন্য বিপদজনক ও এটি জলজ পরিবেশের সবকিছুকে উজাড় করতে সক্ষম হওয়ায় সংসদে বিল উত্থাপনের মাধ্যমে ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এই মাছ নিষিদ্ধ করা হয়।

মাছ ব্যবসায়ীরা জানায়, জেলার চকরিয়ার উপকূলীয় এলাকার দু’একটি পুকুরে গোপনে স্বল্প পরিসরে পিরানহা চাষ হতে পারে। তবে ময়মনসিংহসহ উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জেলায় প্রশাসনের অগোচরে নিজেদের অজ্ঞতায় কতিপয় মৎস্য চাষী এই মাছের চাষ করে। সেখানে উৎপাদিত পিরানহা একযুগ আগে দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছিল।

গত কয়েকমাস ধরে নিষিদ্ধ এই পিরানহা মাছ চকরিয়ার চোঁয়ারফাড়ী, কোণাখালী, চকরিয়া পৌরসভাসহ উপজেলার বিভিন্ন ছোট-বড় বাজার ছাড়াও অলিগলি ও পাড়া-মহল্লায় বিক্রি হচ্ছে। দামে সস্তা ও রুপচাঁদার জাত মনে করে সাধারণ মানুষ এই মাছ কিনছে।

মৎস্য বিশেষজ্ঞদের সূত্রমতে, পিরানহা হলো Characidae গোত্রের এক প্রকার মিষ্টি পানির মাছের সাধারণ নাম। এদের আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকা। ভেনিজুয়েলাতে এদেরকে বলা হয় কারিবেস (caribes)। তীক্ষ্ম দাঁতযুক্ত রাক্ষুসে মাছ হিসাবে এদের কুখ্যাতি আছে। সাধারণত পিরানহা পাওয়া যায় দক্ষিণ আমেরিকার ওরিনকো, আমাজান সাও ফ্রান্সিসকো নদীর অববাহিকায় এদের সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়। যদিও শীতল পানিতে এরা বাঁচে না, তারপরেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উইনেবাগো এবং উইসকোনসিন হ্রদেও এই মাছ দেখা পাওয়া যায়।

নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ বিক্রয় নিয়ে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ পূর্বকোণকে বলেন, বিষয়টি আজ মঙ্গলবার (৭ জুলাই) আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। আগামীকাল বুধবার (৮ জুলাই) ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে পিরানহা বিকিকিনি বন্ধ করা ছাড়াও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 272 People

সম্পর্কিত পোস্ট