চট্টগ্রাম বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিজিএমইএর ৫০ শয্যার ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন
বিজিএমইএর ৫০ শয্যার ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন করলেন তথ্যমন্ত্রী

২ জুলাই, ২০২০ | ৭:৪৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিজিএমইএর ৫০ শয্যার ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, তৈরি পোশাক রপ্তানি খাত বাংলাদেশের অর্থনীতির ‘লাইফ-লাইন’। এই খাতসহ বৈশ্বিক মহামারি মোকাবিলায় সমন্বিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর সচিবালয়ের নিজ দপ্তর থেকে ভিডিও কনফারেন্সে চট্টগ্রামের সল্টগোলায় ৫০ শয্যার বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সকাল সাড়ে ১১টায় জুম এপের মাধ্যমে বিজিএমইএ’র এই হাসপাতালের উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী। বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালামের সভাপতিত্বে এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজিএমইএ’র সভাপতি ড. রুবানা হক ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ।

চট্টগ্রামে ৫০ শয্যার বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করায় তথ্যমন্ত্রী বিজিএমইএ’কে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, করোনার শুরুতে চট্টগ্রামে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার ক্ষেত্রে অনেক প্রতিকূলতা, সীমাবদ্ধতা ছিল। কিন্তু আমরা ক্রমাগতভাবে সমন্বয় সভা করে প্রশাসন, পুলিশ, ব্যবসায়ী-স্বেচ্ছাসেবী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করেছি, সে কারণে আগের পরিস্থিতি এখন নেই, অনেক উত্তরণ ঘটেছে। আইসিইউ, ভেন্টিলেটরসহ যে সুবিধাগুলোর অপ্রতুলতা ছিল, আমরা সেই সংকট সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি।

বাণিজ্যমন্ত্রী চট্টগ্রামে বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সরকারি-বেসরকারি ও বিজিএমইএর এ মহতী উদ্যোগের সফলতায় চট্টগ্রামে কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে। তিনি বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতালের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

ড. রুবানা হক সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা সহায়তাসহ সুযোগ-সুবিধা উত্তরোত্তর বাড়ানোর আহ্বান জানিয়ে পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন জানান।

বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ বলেন, শ্রমিকরা দেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি। চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে হাসপাতালগুলোতে আক্রান্ত রোগীদের যদি নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সার্পোট দেওয়া হয় তাহলে ৯৫ শতাংশ রোগী সুস্থ হবে।

স্বাগত বক্তব্যে বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম বলেন, পোশাক শিল্প বাংলাদেশের অর্থনীতিতে নিয়ামক শক্তি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বিজিএমইএ শ্রমিক কল্যাণ কর্মসূচির আওতায় হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে শ্রমিকদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাসেবা প্রদান, শ্রমিকদের সন্তানদের জন্য অবৈতনিক স্কুল এবং শ্রমিকদের জন্য বাধ্যতামূলক বিমা সুবিধা প্রদান করে আসছে। বর্তমান কোভিড-১৯ সৃষ্ট মহামারীর কারণে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে শ্রমিক কর্মচারী ও স্থানীয় দরিদ্র জনগণের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদানের লক্ষ্যে বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করেছে।

বিজিএমইএ’র পরিচালক এনামুল আজিজ চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে আরও যুক্ত ছিলেন বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি এ.এম চৌধুরী (সেলিম), পরিচালকবৃন্দ খন্দকার বেলায়েত হোসেন, অঞ্জন শেখর দাশ, এনামুল আজিজ চৌধুরী, মোহাম্মদ আতিক, বিজিএমইএ’র প্রাক্তন সভাপতি জনাব এস.এম. ফজলুল হক, প্রাক্তন সহ-সভাপতি জনাব মোহাম্মদ ফেরদৌস, প্রাক্তন পরিচালক এমডিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী, আবদুল মান্নান রানা ও মোহাম্মদ সাইফ উল্ল্যাহ মনসুর।

জুম এপের মাধ্যমে এছাড়া সংযুক্ত ছিলেন বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি মশিউল আলম সজল, প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতিবৃন্দ আলহাজ খলিলুর রহমান, এসএম আবু তৈয়ব ও বিজিএমইএ হাসপাতাল বিষয়ক স্থায়ী কমিটি চেয়ারম্যান ও প্রাক্তন পরিচালক সেলিম রহমানসহ বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ’র প্রাক্তন সভাপতি এসএম ফজলুল হক ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ পরামর্শক ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমান।

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 143 People

সম্পর্কিত পোস্ট