চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০

১ জুলাই, ২০২০ | ৭:৪০ অপরাহ্ণ

আবুল কালাম আজাদ, কাপ্তাই

অবিক্রিত কাগজ নিয়ে বেকায়দায় কর্ণফুলী পেপার মিল

কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনায় অবস্থিত একমাত্র রাষ্ট্রায়ত্ত কাগজ উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান কর্ণফুলী পেপার মিল এখন চরম সংকটাপন্ন। এনসিটিবি কাগজ না নেয়ায় উৎপাদিত কাগজ নিয়ে মহাসংকটে পড়েছে কর্ণফুলী পেপার মিল। শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের (বিসিআইসি) তত্ত্বাবধানে কর্ণফুলী পেপার মিলে উৎপাদিত উন্নতমানের কাগজ এনসিটিবিসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট ডিলারগণ নির্ভরযোগ্য ক্রেতা হলেও এসব ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো নানা কারণে মিলের উৎপাদিত কাগজ ক্রয় থেকে বিরত রয়েছে। পেপার মিলের কাগজ না কিনে বাজারের দেশি-বিদেশি নি¤œমানের কাগজে প্রয়োজনীয় চাহিদার যোগান করা হচ্ছে এসব সরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহে। বর্তমানে অবিক্রিত অবস্থায় পড়ে আছে কর্ণফুলী পেপার মিলের উৎপাদিত প্রচুর কাগজ। গুদামে ঠাঁই করতে না পেরে অগত্যা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে মিলের উৎপাদন।
সরকারি শিক্ষাক্রমের প্রতি বছরের পাঠ্যবই ছাপাতে এনসিটিবি কেপিএম’র (কর্ণফুলী পেপার মিল) থেকে ১০ হাজার মেট্রিক টনেরও বেশি কাগজ ক্রয়ের কোটা রয়েছে। কিন্তু এবার এনসিটিবি মিলের কাগজ ক্রয় করেনি। অন্যান্য ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোরও একই অবস্থা। এতে মিল চরম আর্থিক দুরবস্থার সম্মুখীন হয়। শ্রমিক কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের মাসিক বেতন-ভাতাও অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।
এদিকে, মিলের অবস্থার উন্নতির জন্য কর্তৃপক্ষ নানা সাশ্রয়ী প্রকল্প বাস্তবায়ন করে। সম্প্রতি বিসিআইসি থেকে ২৭ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে ৫ হাজার মেট্রিক টন বৈদেশিক পাল্প আমদানি করে। শিক্ষাবর্ষে এনসিটিবির জন্য কাগজ উৎপাদন করা হয়। বর্তমানে এনসিটিবির চাহিদা অনুযায়ী ৬০ গ্রাম মানের উন্নত ১০০০ মেট্রিক টন কাগজ উৎপাদন করে রাখা হয়েছে কেপিএম-এ। কিন্তু মিলের বড় ক্রেতা এনসিটিবি’র চাহিদাপত্র পাওয়া যাচ্ছে না।
এ ব্যাপারে কর্ণফুলী পেপার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. এম এ কাদের জানান, নানা ষড়যন্ত্রের শিকারে মিলের স্বাভাবিক উৎপাদন ব্যবস্থা ধরে রাখা যাচ্ছে না। চক্রান্তের কবল থেকে কর্ণফুলী পেপার মিলকে বাঁচাতে সরকারি প্রতিরোধ ব্যবস্থা জরুরি।
এদিকে, কর্ণফুলী পেপার মিলকে বাঁচাতে মিলের সর্বস্তরের শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা এবং সমগ্র পার্বত্যবাসী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 174 People

সম্পর্কিত পোস্ট