চট্টগ্রাম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

২৬ জুন, ২০২০ | ৩:৩১ অপরাহ্ণ

সীতাকুণ্ড সংবাদদাতা

সীতাকুণ্ডে মসজিদের ফলক ভেঙে ফেলেছে দুষ্কৃতকারীরা

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলমের উদ্বোধনের দু’দিন পর রাতের আঁধারে মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ফলক ভেঙে ফেলেছে দুষ্কৃতকারীরা। এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাংসদ দিদারুল আলম। খবর পেয়ে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

জানা যায়, গত ২৩ জুন মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের ফকিরহাট এলাকায় সাদেক মস্তান (রা.) উচ্চ বিদ্যালয়ের বিপরীত পাশে দৃষ্টিনন্দন এই মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলম। কিন্তু উদ্বোধনের দু’দিন পর বৃহস্পতিবার রাতে দুষ্কৃতকারীরা মসজিদের নিরাপত্তা প্রহরীকে মারধরের পাশাপাশি উদ্বোধন ফলক ভাঙার চেষ্টা চালায়।

খবর পেয়ে সীতাকুণ্ড থানার এস আই মামুন ঘটনাস্থলে গেলে দুস্কৃতকারীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার ঘন্টা দু’য়েক পর এস আই মামুন চলে গেলে দুষ্কৃতকারীরা গভীররাতে পুণরায় ঘটনাস্থলে এসে উদ্বোধন ফলক ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়।

মসজিদে উদ্বোধন ফলকে দুষ্কৃতকারীদের পরিকল্পিত এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলম বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার পিতার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি উপজেলায় কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজ শুরু করেন। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাস্তবায়নে মঙ্গলবার ফকিরহাট এলাকায় এ মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। কিন্তু সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে একদল দুষ্কৃতকারী রাতের আঁধারে উদ্বোধন ফলক ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি মসজিদে হামলা চালায়। হামলায় জড়িত দুষ্কৃতকারীদের দ্রুত চিহিৃত পূর্বক গ্রেপ্তারে করণীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিল্টন রায় জানান ,রাতের আঁধারে মসজিদের উদ্বোধন ফলক ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেওয়ার ঘটনাটি অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। এ ঘটনাটি শুনে আমি মর্মাহত হয়েছি। ঘটনায় জড়িতদের চিহিৃত করে আইনি ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজে দুষ্কৃতকারীর হামলার খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এস আই মামুনকে পাঠালে দুষ্কৃতকারীরা পালিয়ে যায়। কিন্তু ঘন্টাখানেক পর মামুন চলে গেলে দুষ্কৃতকারীরা পুনরায় এসে উদ্বোধন ফলক ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতির পাশাপাশি জড়িতদের চিহিৃত করে অতিদ্রুত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 267 People

সম্পর্কিত পোস্ট