চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০

২৪ জুন, ২০২০ | ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোডের সাড়ে ৩শ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ১০ জনকে কারাদণ্ড

বায়েজিদ-ফৌজদারহাট সিডিএ লিংক রোড এলাকায় প্রায় ৭ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ঝুঁকিপূর্ণ সাড়ে ৩শ স্থাপনা ও বসতি উচ্ছেদ করেছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া উচ্ছেদে বাধা দানকারীদের ১০ জনকে কারাদণ্ড দিয়েছে জেলা প্রশাসনের পাচঁ ম্যাজিস্ট্রেটের পরিচালনাধীন ভ্রাম্যমান আদালত। আজ বুধবার জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর এর যৌথ উদ্যোগে সিএমপি ও রেলওয়ের সহযোগিতায় এ বিশাল উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে বায়েজিদ প্রান্ত এবং সীতাকুণ্ড প্রান্ত থেকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের দুটি টিম ঝুঁকি পূর্ণ স্থাপনা অপসারণ কার্যক্রম শুরু করে। প্রায় ৭ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে পরিচালিত অভিযান দুপ্রান্ত থেকে শুরু হয়ে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি এলাকায় এসে শেষ হয়।  অভিযানে ছিলেন সীতাকুন্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায় , নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম , নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুস সামাস শিকদার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনীক, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মো. শরীফ হোসেন। অভিযানে সিমএমপি টিমের নেতৃত্বে ছিলেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার পরিত্রাণ, এসি বায়েজিদ জোন।পরিবেশ অধিদপ্তর এর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মেট্রোর পরিচালক নুরুল্লাহ নূরী, পরিচালক চট্টগ্রাম অঞ্চল মোয়াজ্জেম হোসেন, উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদ। রেলওয়ের পক্ষে ছিলেন এস্টেট অফিসার মাহবুবুল আলম।

বায়েজিদ-ফৌজদারহাট সিডিএ লিংক রোডের দু’পাশে পরিচালিত অভিযানে ১৬ টি পাহাড়ে প্রায় ৩ শ ৫০টি চরম ঝুঁকি পূর্ণ ঘর অপসারণ করা হয়েছে।  প্রতিবছরই বৃষ্টির মৌসুমে ঝুঁকি পূর্ণ পাহাড় ধসে দুর্ঘটনা ঘটে। এবছর নবনির্মিত সিডিএ লিংক রোডের দু’ধারে করোনাভাইরাস দুর্যোগ পরিস্থিতিতে বিগত এপ্রিল-মে মাসে পাহাড় কেটে ব্যক্তিগত ও সরকারি জমিতে  প্রচুর নতুন ঘর গড়ে তুলেছে যেগুলো চরম ঝুঁকি পূর্ণ অবস্থায় ছিল।

অভিযানের শুরুতে হাটহাজারী উপজেলাধীন জালালাবাদ মৌজা এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সিএমপি পুলিশ বাহিনী সহ জেলা প্রশাসন চট্টগ্রাম এবং পরিবেশ অধিদপ্তর সহ অন্যান্য সরকারি সংস্থার যৌথ টিম স্থানীয় সন্ত্রাসীদের মদদে ঝুঁকি পূর্ণ এলাকায় বসবাসকারীদের প্রতিরোধের মুখে পড়ে।

এমনকি এসময় পাহাড় থেকে উচ্ছেদ টিমের অন্তর্ভুক্ত ভূমি অফিসের দুই কর্মীকে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালায়। পরিস্থিতি উত্তেজনাকর হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের আদেশে উপস্থিত পুলিশ টিম বিশৃঙ্খল জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে। পরে সরকারি কাজে বাধা দেয়ায় এবং পাহাড়ের ঝুঁকি পূর্ণ স্থাপনা কাজে দায়িত্বরত সরকারি টিমের সদস্যকে শারীরিকভাবে আক্রমণ করায় ১০ জনকে আটক করা হয়। সংশ্লিষ্ট রাষ্ট্রীয় আইনে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জড়িত ১০ জনকে ৭ দিন করে জেল দন্ড দেয়া হয়েছে।

পূর্বকোণ / আর আর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 316 People

সম্পর্কিত পোস্ট