চট্টগ্রাম বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সীতাকুণ্ডে করোনার উপসর্গ নিয়ে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

৬ জুন, ২০২০ | ১:৫৯ অপরাহ্ণ

সীতাকুণ্ড সংবাদদাতা

সীতাকুণ্ডে করোনার উপসর্গ নিয়ে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে করোনার উপসর্গ জ্বর-শ্বাস কষ্টে আক্রান্ত হয়ে মো. একরামুল ইসলাম (৪৫) নামক এক সাব-ইন্সপেক্টর মারা গেছেন।

আজ শনিবার (৬ জুন)  বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মীরা তার নমুনা সংগ্রহ করেছেন। এদিকে শুক্রবার রাতে থানার ওসি ইন্টিলিজেন্স ও গাড়ি চালকের করোনা ধরা পড়ে। এছাড়া অসুস্থতায় ভুগছেন এডিশনাল এসপিও।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) শামীম শেখ জানান, থানার এস.আই মো. একরাম গত সাত আট দিন ধরে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। এ কারণে তাকে ছুটি দেওয়া হয়েছে। গত ১লা জুন থেকে তিনি পৌরসদরের ভূঁইয়া টাওয়ারের ৩য় তলার ভাড়া বাসায় ছুটিতে ছিলেন। তবে সেখানে তিনি একাই থাকতেন। সর্বশেষ শুক্রবার রাতেও তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা। এসময়ও নিজের অসুস্থতার কথা জানান তিনি। তবে এতটা জটিল অবস্থা কেউ বুঝতে পারেননি। শনিবার সকালে এমরান নিজের শরীর বেশি খারাপ লাগছে বলে ওসিকে জানালে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নুর উদ্দিনকে জানান। খবর পেয়ে ডা. নুর উদ্দিন এম্বুলেন্স পাঠিয়ে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এখানে ডাক্তাররা পরীক্ষা করে তাকে মৃত বলে জানান। এস.আই ইকরাম কুমিল্লার লাকসাম থানার অতিশপাড়া ইউনিয়নের কাঁঠালপাড়া গ্রামের মৃত শামছুল আলমের পুত্র। ১৯৯৫ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারী তিনি বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নুর উদ্দিন রাশেদ জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় সীতাকুণ্ড ওসি তাকে ফোন করে জানান একজন সাব ইন্সপেক্টর খুব অসুস্থ বোধ করছেন দ্রুত এম্বুলেন্স পাঠাতে হবে। খবর পাওয়া মাত্র তিনি ডাক্তারসহ এম্বুলেন্স পাঠিয়ে দেন। তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এখানে পরীক্ষার পর দেখা যায় তিনি মারা গেছেন। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আরো বলেন, আমি জানতে পেরেছি তিনি আরো ৮ দিন আগে থেকেই জ্বর-সর্দি-শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। তাই মৃত্যুর পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

এদিকে এর আগে শুক্রবার রাতে থানার ওসি (ইন্টেলিজেন্স) সুমন বণিক, থানার গাড়ি চালক তোহিদুল ইসলামেরও করোনা সনাক্ত হয়। এছাড়া এডিশনাল এসপি শম্পা রানী সাহাসহ কয়েকজন অসুস্থ বোধ করছেন। ফলে থানায় দায়িত্বরত অফিসাররা সবাই উদ্বিগ্ন।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 211 People

সম্পর্কিত পোস্ট