চট্টগ্রাম বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০

সর্বশেষ:

জটলাবিহীন যাত্রা শুরু করল ট্রেন

৩১ মে, ২০২০ | ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

জটলাবিহীন যাত্রা শুরু করল ট্রেন

সীমিত পরিসরে ট্রেন চলাচলের ঘোষণা আসার পর থেকে যাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে নানান নির্দেশনা দেয় রেল মন্ত্রণালয়। এই যেমন স্টেশনের কাউন্টারে মিলবে না টিকেট, সংগ্রহ করতে হবে অনলাইন থেকে। ভ্রমণের আগে যাত্রীদের দিতে হবে সুস্থ শরীরের পরীক্ষা, এবং মাস্ক থাকা বাধ্যতামূলক। শুধু কি তাই, যাত্রীদের ট্রেনে উঠতে হবে সামাজিক দূরত্ব মেনে এবং ট্রেনে উঠেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে হাত।

যার সবনিয়ম মেনেই ঢাকার উদ্দেশ্যে আজ রবিবার সকাল ৭টায় চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়েছে সুবর্ণ এক্সপ্রেস। যাত্রার পূর্বে চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে ঢোকার সময় ছিলো না যাত্রীদের কোনো জটলা। তিন মিটার দূরত্ব মেনে যাত্রীদের প্রবেশ করতে হয়েছে স্টেশনে। মুখে মাস্ক, ট্রেনে ওঠার সময় প্রত্যেকের হাত হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করতে হয়েছে। সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেনে প্রত্যেকটি বগি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন। জীবাণুনাশক স্প্রে করা হয়েছে পুরো ট্রেনে। ওয়াশরুমে রাখা হয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, টিস্যু। ট্রেনের কর্মচারীরা সবাই হাতে গ্লাভস, মুখে মাস্ক পড়েছেন। ট্রেনে দুজনের সিটে বসানো হয়েছে একজনকে। এ যেন জটলাবিহীন এক অন্য ট্রেন যাত্রা। এমন ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্ট যাত্রীরাও।

রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী জানান, সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেনে ৪৫৪ সিটের মধ্যে বিক্রি হয়েছে ৩৮৭টি। এই ৩৮৭ জন যাত্রী নিয়ে ট্রেনটি ঠিক সময়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। একইভাবে বিকেল ৫টায় সোনার বাংলা ও রাত সাড়ে ১০টায় উদয়ন চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে।

ইতোমধ্যে সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনের ২৯৭টি টিকিটের মধ্যে ১০৭টি টিকিট বিক্রি হয়েছে আর উদয়নে ৩১৬টি সিটের বিপরীতে বিক্রি হয়েছে ১৮০টি টিকিট।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) পরিদর্শক আমান উল্লাহ পূর্বকোণকে বলেন, স্টেশনে ঢোকার সময় হ্যান্ডহেল্ড থার্মোমিটার দিয়ে প্রত্যেক যাত্রীর জ্বর মাপা হয়েছে। মুখে মাস্ক ও হাতে গ্লাভস পড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। ট্রেনের ভেতর যাতে কোনো অতিরিক্ত যাত্রী না উঠে, সেটিও নিশ্চিত করা হয়েছে।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) আনসার আলী পূর্বকোণকে বলেন, মাননীয় রেলমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করেছি। ট্রেনে এক দরজা দিয়ে ঢোকার ও অন্য দরজা দিয়ে বের হওয়ার ব্যবস্থা করেছি। যাত্রী ওঠার আগে পুরো ট্রেন জীবাণুমুক্ত করা হয়।

পূর্বকোণ/পিআর

The Post Viewed By: 141 People

সম্পর্কিত পোস্ট