চট্টগ্রাম বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০

ফটিকছড়িতে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

২৪ মে, ২০২০ | ৩:৪০ অপরাহ্ণ

ফটিকছড়ি সংবাদদাতা

ফটিকছড়িতে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানা এলাকায় গত ২৩ মে দিবাগত রাতে খালাতো দুই বোনকে তুলে নিয়ে আটজন মিলে ধর্ষণের প্রধান অভিযুক্ত হেলাল উদ্দিন পুলিশের সাথ কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। অভিযুক্ত আটজনের মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মূল আসামি মারা গেছেন।

শনিবার (২৩ মে) গভীর রাতে উপজেলার ভুজপুর থানার আন্ধারমানিক গলাচিপার টেক এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধ হয়েছে বলে দাবি পুলিশের।

মৃত মো. হেলাল উদ্দিন (৩০) উপজেলার পশ্চিম ভুজপুর এলাকার জাফর আলমের ছেলে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ভুজপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শাহাদাত হোসেন জানান, শনিবার সকালে ভুজপুর থানার কাজীরহাট বাজার থেকে ফেরার পথে দুই খালাতো বোনকে হেলালের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী অপহরণ করে আন্ধারমানিক গলাচিপার টেক এলাকায় জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে আটজন মিলে তাদের ধর্ষণ করে ফেলে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। এই ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে থানায়। দুই খালাতো বোনের একজন সপ্তম শ্রেণী ও আরেকজন অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী।

এসআই শাহাদাত বলেন, ‘জড়িত আটজনের মধ্যে ছয়জনকে তারা চিনতে পেরেছেন। বাকি দুজন অপরিচিত ছিল। মামলার এজাহারে হেলালকে প্রধান আসামি করে বাকি ছয়জনের নাম উল্লেখ করা হয়। বাকি দুজন অজ্ঞাতনামা হিসেবে উল্লেখ করা হয়। ঘটনা জানার পর থেকেই আমরা তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করি। হেলালকে আমরা গ্রেফতারের পর বাকি আসামিদের ধরতে আন্ধারমানিক এলাকায় অভিযানে যাই। তখন আমাদের ওপর হামলা হয়। পাল্টাপাল্টি গোলাগুলিতে হেলাল নিহত হন। এজাহারভুক্ত আরও দুজনকে আমরা ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার করি।’

ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, একটি কিরিচ, চারটি গুলি উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এসআই শাহাদাত আরও জানান, হেলালের বিরুদ্ধে ভুজপুর থানায় ডাকাতির মামলাও আছে।

পূর্বকোণ/পিআর

The Post Viewed By: 146 People

সম্পর্কিত পোস্ট