চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

করোনা: ৩মাসের শিশুসহ চট্টগ্রামে শনাক্ত আরও ৪৭

১১ মে, ২০২০ | ১১:৩৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আছেন চমেক হাসপাতালে নারী চিকিৎসকসহ নার্সও

করোনা: ৩মাসের শিশুসহ চট্টগ্রামে শনাক্ত আরও ৪৭

আক্রান্তের হার ১৬ শতাংশের বেশি

দুই নারী চিকিৎসক ও নার্সসহ চট্টগ্রামে আরও ৪৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। চিকিৎসক ছাড়াও চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের এক কর্মচারী রয়েছেন। রয়েছেন বরাবরের মতো পুলিশ সদস্যও। এছাড়া উপজেলা পটিয়াতেই ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ১১ জন। যাদের মধ্যে ৩ মাসের এক শিশুসহ একই পরিবারের ছয় সদস্য রয়েছেন।
তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বমোট চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডি ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ল্যাবে সর্বমোট ২৯০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এছাড়া কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে চট্টগ্রামে পরীক্ষা হওয়াদের মধ্যে চট্টগ্রামের একজন শনাক্ত হয়। সব মিলয়ে ২৪ ঘণ্টায় এসব নমুনা পরীক্ষার বিপরীতি প্রায় ১৬ শতাংশের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে একদিনেই। যাদের মধ্যে শুধুমাত্র নগরীতেই আক্রান্ত ব্যাক্তি রয়েছেন ৩০ জন। বাকিরা বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সংখ্যা দাঁড়িয়েছেন ৩শ ৩৩ জনে।
এদিকে, ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে একজনের আগেই মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া এদিন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও এক রোগী মৃত্যু হয়। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে আক্রান্তদের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যা ২১ জনে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। যদিও সুখের খবর, মৃত্যুর প্রায় তিনগুন রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।
গতকাল সোমবার ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজ (বিআইটিআইডি) হাসপাতালের ল্যাবে ২৩৪ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তারমধ্যে ৩৯ জনের ফলাফল পজেটিভ আসে। এরমধ্যে চট্টগ্রাম নগরীর ১৭ জনসহ মোট ৩১ জন রয়েছে। এছাড়া শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে নোয়াখালী জেলার ৭ জন এবং ফেনী জেলার ১ জন রয়েছেন।
একই দিনে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) ল্যাবে সর্বমোট ৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তারমধ্যে নগরীর ১৩ জনসহ সর্বমোট ১৫ জনের ফলাফল পজেটিভ আসে। বাকি দু’টির মধ্যে একজন পটিয়ার এবং একজন ফৌজাদারহাটের ফকিরহাট এলাকার বাসিন্দা।
এছাড়া এ দিন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ল্যাবে ৭০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এ ফলাফল প্রকাশ করেনি স্বাস্থ্য বিভাগ। যদিও সেমাবার (১১ মে) সিভাসুর একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাও গত রবিবারের (১০ মে) ফলাফল সেটি। যেটি সোমবারের (১১ মে) পূর্বকোণ পত্রিকায় আগেই প্রকাশিত হয়েছে।
চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি পূর্বকোণকে বলেন, বিআইটিআইডি ও চমেকের ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বমোট ২৯০জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যাদের মধ্যে ৫৪ জনের ফলাফল পজেটিভ আসে। এ ৫৪ জনের মধ্যে চট্টগ্রামের ৪৬ জন রয়েছেন। বাকি ৮জন অন্য জেলার। এছাড়া কক্সবাজার মেডিকেলে চট্টগ্রামের একজন শনাক্ত হয়েছে। সবমিলিয়ে ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে শনাক্ত হয়েছেন ৪৭ জন। ’
চট্টগ্রামে শনাক্ত যারা : চট্টগ্রাম মেডিকেলের ল্যাবে শনাক্তদের মধ্যে নগরীর রাহাত্তারপুল চান্দা পুকুর পাড়ের এসএস হেভেন এলাকার ২২ বছরের যুবক ও একই পরিবারের ৩০ বছরের যুবক রয়েছেন। যারা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের এক নারী চিকিৎসকের দেবর। এর আগে এই পরিবারের একজন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। এছাড়া নগরীর বন্দরটিলা এলাকার ৬৬ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা, বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি (বিএমএ) ২৯ বছর বয়সী যুবক ও ৩৪ বছর বয়সী পুরুষ, পতেঙ্গার নৌবাহিনী (বিএনস’র) ২৪ বছর বয়সী যুবক, বায়েজিদ এলাকার ৩০ বছর বয়সী যুবক, আগ্রাবাদের বেপারীপাড়ার ৩৯ বছর বয়সী পুরুষ, পটিয়ার ৫৯ বছর বয়সী বৃদ্ধ, ফৌজদারহাটের ফকিরহাট এলাকার ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধ, নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন হাজারি গলির ১৭ বছর বয়সী তরুনী, ২২ বছর বয়সী যুবক, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের ৫২ বছর বয়সী এক কর্মচারী, শাকেরপুল এলাকার ২৮ বছর বয়সী যুবক, বন্দর থানাধীন ফ্রিপোর্ট এলাকার ২৪ বছর বয়সী যুবক রয়েছেন।
বিআইটিআইডিতে শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে নগরীর পাঁচলাইশের উত্তর গ্রীন ভিউ আবাসিক এলাকার ভুঁইয়া ম্যানশনের ৪৬ বছর বয়সী পুরুষ, কর্ণেলহাট সিডিএ আবাসিক বন কুঠির ২৮ বছর বয়সী যুবক, পাহাড়তলী নোয়াপাড়ার গোল্ডেন টাওয়ারের ২৮ বছর বয়সী যুবক, পাহাড়তলী বাচা মিয়া রোডের হোসাইন ম্যানশনের ৪৩ বছর বয়সী পুরুষ, লালখান বাজার পশ্চিম বাঘগোনা এলাকার ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধ, হালিশহরের নয়াবাজার মৌসুমি আবাসিক এলাকার ৩৫ বছর বয়সী পুরুষ, আকবরশাহ এলাকার ৩০ বছর বয়সী যুবক, চকবাজার এলাকার ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ (মৃত) নাসিরাবাদর এলাকার ৩০ বছর বয়সী নারী, পাঁচলাইশ এলাকার ৩২ বছর বয়সী এক নারী চিকিৎসক। তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক বলে জানা গেছে। এছাড়া পটিয়া উপজেলার এক নম্বর ওয়ার্ডের কাগজী পাড়ার ৪৮ বছর বয়সী নারী, ফৌজদারহাটের ফিল্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৬০ বছরের বৃদ্ধ, দামপাড়া পুলিশ লাইনের ৪০ বছর বয়সী পুলিশ সদস্য, নন্দনকাননের ৩০ বছর বয়সী পুরুষ, আগ্রাবাদ ছোটপুল এলাকার ১২ বছর বয়সী এক কন্যা শিশু, পটিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ৪৫ বছর বয়সী পুরুষ, কামাল বাজারের ৬২ বছর বয়সী বৃদ্ধ, ২৪ বছর বয়সী যুবক, ৩৬ বছর বয়সী নারী, ২২ বছর বয়সী তরুনী ও এক পুরুষ, ১১ বছর বয়সী ও তিন মাসের এক শিশু, ৪২ বছর বয়সী পুরুষ এবং ১৮ বছরের এক যুবক রয়েছে। এছাড়া সাতকানিয়া এলাকার ৩০ বছর বয়সী এক নারী, সাতকানিয়ার হাজী রহমত আলী বাড়ির ২৩ বছরের যুবক, একই বাড়ির ২৫ বছরের যুবক, আগ্রাবাদ এলাকার ৪২ বছর বয়সী পুরুষ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ৪০ বছর বয়সী নার্স ও আগ্রাবাদ এলাকার ২৯ বছর বয়সী এক নারী চিকিৎসক রয়েছেন।
এর বাইরে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে পরীক্ষা হওয়া চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার এক ব্যক্তি রয়েছেন। সব মিলিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৪৭ জন।
গত ২৪ ঘন্টায় পরীক্ষা হওয়া ২৩৪ জনসহ বিআইটিআইডি এ নিয়ে ৫ হাজার ২৪০ জনের নমুনা এবং সিভাসুর ল্যাবে ১ হাজার ৯২ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এছাড়া চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) ল্যাবে গতকালের ৫৬ জনসহ মোট ৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। যারমধ্যে চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত ৩৩৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ইতোমধ্যে ৬৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এবং মৃত্যু হয়েছে ২১ জনের।
মৃত্যু আরও দুই জনের : করোনা শনাক্ত হওয়ার আগেই নগরীর চকবাজার এলাকার এ এম ওয়াহিদ (৬৫) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। গত ৫ মে ওই বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরমধ্যে গতকাল সোমবার প্রকাশিত ফলাফলে তার পজেটিভ আসে। এছাড়া চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আমেনা বেগম (৬৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীণ অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

 

পূর্বকোণ/রাজু/আরপি

The Post Viewed By: 366 People

সম্পর্কিত পোস্ট