চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ষোলশহর ট্রাফিক বক্সে বোমা: ৩ যুবক গ্রেপ্তার

৪ মে, ২০২০ | ৬:১২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ষোলশহর ট্রাফিক বক্সে বোমা: ৩ যুবক গ্রেপ্তার

চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর দুই নম্বর গেইট ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বোমা বিষ্ফোরণে সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন যুবককে গ্রেপ্তার করেছে নগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগ। বিস্ফোরণের ঘটনায় অংশ নিয়েছিল নব্য জেএমবির দশ সদস্য। বাকি সাত সদস্য পলাতক রয়েছে।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে নগরীর পাঁচলাইশ থানার ষোলশহর দুই নম্বর গেইট এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে দুজন সেখানে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশের সদস্য। তারা হলেন, সার্জেন্ট আরাফাত হোসেন ও এএসআই মো. আতাউদ্দিন। এছাড়া ১০ বছরের এক শিশু এবং আরও দুই যুবক আহত হন।

ঘটনার পরদিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জঙ্গি কার্যক্রম নজরদারি সংস্থা ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ জানিয়েছিল- জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট এই হামলার দায় স্বীকার করেছে। গ্রেপ্তার তিন যুবক হলেন, সাতকানিয়ার দক্ষিন ঢেমশা গ্রামের হাদুর বাড়ির ইছাহাক মিয়ার ছেলে সাইফল্লাহ, সে নগরীর চকবাজারে নুরা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি কম্পিটারের দোকানে চাকরি করে। নলুয়ার দক্ষিণ মরফলা গ্রামের মনির আহমদের ছেলে এমরান, সে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং বিভাগের অষ্টম সেমিষ্টারের ছাত্র ও উত্তর ঢেমশা গ্রামের মহরম আলির ছেলে আবু ছালেহ। সে ন্যাশনার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের টেক্সটাইল বিভাগের সপ্তম সেমিষ্টারের ছাত্র। তবে তিনজনকে গ্রেপ্তারের পর কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগ বলছে, এই হামলার পরিকল্পনা থেকে বাস্তবায়ন সবই নব্য জেএমবির। এর সঙ্গে আইএস-এর সম্পৃক্ততার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। কাউন্টার টেরোরিজমের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (এডিসি) পলাশ কান্তি নাথ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের তারা জানিয়েছে, শরিয়াহ ভিত্তিক আইন প্রতিষ্ঠা তাদের লক্ষ্য।স্বপ্রনোদিত হয়ে সংগঠনের আদর্শ বাস্তবায়নের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে তারা। পুলিশকে তারা তাগুত মনে করে। এ জন্য পুলিশ সদস্য চিহ্নিত করে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায় গ্রেপ্তার তিনজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পূর্বকোণ/এম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 582 People

সম্পর্কিত পোস্ট