চট্টগ্রাম শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

৭০ লাখ মেট্রিকটন ধান কেনার দাবি ক্ষেত মজুর ও কৃষক ফ্রন্টের

৪ মে, ২০২০ | ৪:০৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

৭০ লাখ মেট্রিকটন ধান কেনার দাবি ক্ষেত মজুর ও কৃষক ফ্রন্টের

করোনা পরিস্থিতিতে খাদ্য সংকট মোকাবিলায় ও ধানচাষীদের রক্ষার জন্য ক্ষেত মজুর ও কৃষক ফ্রন্টের পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়।
আজ সোমবার (৪ মে) চট্টগ্রামের জেলা নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন। একইসাথে চট্টগ্রামের কৃষকদের কাছে ধান কেনার ক্ষেত্রে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির সমস্যা নিরসনে দাবি তুলে ধরেন। স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, ক্ষেতমজুর ও কৃষকফ্রন্ট সংগঠক সত্যজিৎ বিশ্বাস, জেলা বাসদ (মার্কসবাদী) সদস্য সচিব অপুদাস গুপ্ত, সদস্য আরিফ মঈনুদ্দীন।
সংগঠনের স্মারকলিপিতে বলা হয়, বর্তমান ইরি বোরো মৌসুমে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ৩ কোটি ২ লক্ষ ৭৫ হাজার মেট্রিকটন। অথচ সরকার ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে ৮ লাখ মেট্রিকটন। এই সামান্য পরিমাণ ধান ক্রয় করে সারাদেশের কৃষককে রক্ষা করা এবং আসন্ন খাদ্য সংকট মোকাবেলায় কোন কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবে না। বিশ্বের খাদ্য রপ্তানিকারক দেশগুলি এই করোনা পরিস্থিতিতে খাদ্যরপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে, রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনায় খাদ্য মজুদের দিকেই নজর দিচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশে সরকার কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করেছে তাতে চালের পুরো বাজার চাল ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের হাতে চলে যাবে।
ইতোমধ্যে হাওরসহ বিভিন্ন এলাকায় যেখানে ধান কাটা শুরু হয়েছে, সেখানে সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের কারসাজিরর কারণে ৪০০/৪৫০ টাকায় কৃষকেরা ধান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। তাই সরকারি উদ্যোগে হাটে হাটে, ইউনিয়ন পর্যায় থেকে ধান ক্রয়ের দাবি জানানো হয়। বাড়তি খাদ্যগুদামজাত ও সংরক্ষণের ব্যাপারে সংগঠনের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। সরকারি খাদ্য গুদামের পাশাপাশি বেসরকারি গুদামভাড়া করা, কৃষকদের কাছে ধান রেখে টাকা পরিশোধ করা দাবি জানানো হয়।
পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 199 People

সম্পর্কিত পোস্ট