চট্টগ্রাম বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

২৪ ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু

১৪ এপ্রিল, ২০২০ | ২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রামে করোনা

২৪ ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু

নারীসহ নতুন আক্রান্ত আরও দুই

  • আক্রান্ত প্রতিবন্ধী শিশুটিও মারা গেল
  • এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ১৬ জন

চট্টগ্রামে এক নারীসহ নতুন আরও দুইজনের শরীরে কোভিড-১৯ সংক্রমণ পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) হাসপাতালের নমুনা পরীক্ষারপর তাদের ফলাফল পজেটিভ আসে। আক্রান্ত দুইজনের মধ্যে একজন নারী এবং অন্যজন পুরুষ। নতুন এ দুইজনসহ এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ জনে।
এদিকে, নতুন শনাক্ত দুইজনের মধ্যে ওই নারীর গতকাল সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়। তিনি নগরীর পাহাড়তলী সরাইপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তার বয়স ৫০ বছর। এর আগে রবিবার দিবাগত রাত আড়াইটায় জেনারেল হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত পটিয়ার ছয় বছর বয়সী প্রতিবন্ধী শিশুটির মৃত্যু হয়। নমুনা পজিটিভ হওয়া রোগীদের মধ্যে এ নিয়ে চট্টগ্রামে তিনজন মারা গেল । বৃদ্ধা ও শিশু ছাড়াও এর আগে সাতকানিয়ায় এক ব্যক্তিও করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান। যদিও তার মৃত্যুর পর নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়। নতুন করে শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া অন্যজন উত্তর কাট্টলীর ৫৭ বছর বয়সী পুরুষ। জানা যায়, আক্রান্ত এই বৃদ্ধ উত্তর কাট্টলী ঈশান মহাজন রোড এলাকার মেরিডিয়ান গ্রুপের জায়গার কেয়ারটেকার হিসেবে কাজ করতেন বলে জানা গেছে। একই সাথে তিনি পাশে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন। বর্তমানে আক্রান্ত ওই ব্যক্তি বিআইটিআইডি হাসপাতালের আইসোলেশনে আছেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য দপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর পূর্বকোণকে বলেন, ‘বিআইটিআইডি হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে তিনজনের শরীরের করোনার সংক্রমণ পাওয়া যায়। দুজনই নগরীর বাসিন্দা। যদিও তাদের মধ্যে এক নারী দুপুরে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশনে মৃত্যু হয়েছে। নতুন এ দুইজনসহ চট্টগ্রাম নগরীর ও জেলাতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ জন।’
মৃত্যু হওয়া সরাইপাড়া এলাকার ওই নারী সোমবার সকালে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন জানিয়ে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি পূর্বকোণকে বলেন, ওই নারী শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। তিনি আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন। দুপুর ২টার দিকে ওই নারীর মৃত্যু হয়। করোনা পরীক্ষার জন্য ওই নারী নমুনা সংগ্রহ করে এর আগেই ফৌজদারহাট বিআইটিআইডিতে পাঠানো হয়েছিল। রাতে তার রিপোর্ট পজেটিভ আসে।’
মারা গেল শিশুটিও : গত রবিবার রাতে করোনা শনাক্ত হওয়া পটিয়ার ছয় বছরের শিশুটি মারা গেছে। ওই দিন রাতে শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে প্রতিবন্ধী শিশুটি। রবিবার রাত আড়াইটার দিকে চট্টগ্রাম চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘করোনা শনাক্ত হওয়ার পর প্রায় রাত দুইটার দিকে ওই শিশুটিকে পটিয়া থেকে জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু আড়াইটার দিতে হাসপাতালের আইসোলেসন ইউনিটে তার মৃত্যু হয়।’
মৃত্যু হওয়া শিশুটির বাড়ি পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডে। সে দীর্ঘদিন থেকেই জ্বর, সর্দি, কাশি ও ডায়রিয়ায় ভুগছিল বলে জানায় স্বাস্থ্য বিভাগ।
আইসোলেশনের মৃত্যু হয়েছে আরেক নারীর : করোনা আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে সরাইপাড়া এলাকার এক নারীর মৃত্যু ছাড়াও হাসপাতালটিতে একই দিনে আরেক নারীর মৃত্যু হয়েছে। যদিও তার শরীরের করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। তবে তিনি শ্বাসকষ্ট নিয়ে কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহা থেকে সোমবার চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। এরমধ্যে ওই দিন দুপুর আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে হাসপাতালটির তত্ত্বাবধায়ক ডা. অসীম কুমার নাথ পূর্বকোণকে বলেন, ‘তারও শরীরের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু পরীক্ষায় তার শরীরে সংক্রমণ পাওয়া যায়নি। তিনি করোনায় আক্রান্ত নয়। বরং স্বাভাবিক মৃত্যু হয় বলে জানান ডা. অসীম কুমার নাথ। ’
প্রসঙ্গত: নতুন শনাক্ত হওয়া এই দুইজনসহ চট্টগ্রামে করোনা পজেটিভ রোগীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ১৬ জনে। এর মধ্যে নগরে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন ১০ জন। বাকি ৬ জনের ৩ জন সাতকানিয়া, ২ জন সীতাকু- ও একজন পটিয়ার। এ ১৬ জনের বাইরে লক্ষ্মীপুর জেলার ২ জনও শনাক্ত হয়েছেন বিআইটিআইডির ল্যাব টেস্টে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 317 People

সম্পর্কিত পোস্ট