চট্টগ্রাম সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

মুরগি ক্রয়ে অনীহা ক্রেতার

১৩ এপ্রিল, ২০২০ | ২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

মরিয়ম জাহান মুন্নী

বাজারে করোনাভাইরাসের প্রভাব

মুরগি ক্রয়ে অনীহা ক্রেতার

করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়েছে মুরগির বাজারে। কমেছে ব্রয়লার, লেয়ার ও দেশি মুরগির দাম। এর অন্যতম কারণ ক্রেতাদের মধ্যে করোনাভাইরাস ভীতি। অনেকেই ভাবছে ব্রয়লার মুরগি, লেয়ার মুরগি ও ডিমের মাধ্যমে এ ভাইরাস ছড়াতে পারে। এছাড়া কয়েক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি অফিস-আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, গামের্ন্টসহ সকল কর্মস্থান বন্ধ থাকায় নগরীতে জনসাধারণের উপস্থিতি কমে যায়। আবার যারা নগরীতে রয়েছে তারা মাছ, মাংস ও মুরগি দ্বারা ভাইরাস ছড়ানোর ভয়ে এসব আমিষ জাতীয় খাবার ত্যাগ করেছে। এমন পরিস্থিতিতে নগরীতে মুরগির দামে ধস নেমেছে বলে জানান বিক্রেতারা। গতকাল নগরীর বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায় প্রতিটি দোকানে অল্প কিছু ব্রয়লার, লেয়ার ও দেশি মুরগি নিয়ে বসেছে বিক্রেতারা। কিন্তু দেখা নেই ক্রেতার। এখন বাজারে ব্রয়লার মুরগির দাম কমে প্রতি কেজি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১০৫ থেকে ১১০ টাকায়। যা আগে ছিল ১২০ টাকা। লেয়ার বিক্রি হচ্ছে ২শ’ টাকায়। যা আগে ২৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এত অল্প টাকায় মুরগি বিক্রি হলেও দেখা নেই ক্রেতার। চকবাজারের মুরগি বিক্রেতা মো.

জাহাঙ্গীর বলেন, বাজারে ক্রেতা নেই। প্রতিদিন আমার দুইটি দোকান মিলে মাত্র ৬০ থেকে ৯০টা মুরগি নিই। কিন্তু এ অল্প মুরগিও বিক্রি হচ্ছে না। অথচ আগে দিনে প্রায় ৯শ’ থেকে ১২শ’ মুরগি বিক্রি হতো। আবার যারা বাজার করছে তারা মুরগির দোকানের দিকে আসছে না। মানুষ ভাবছে মুরগির মাধ্যমে ভাইরাস ছড়ায়। এ ভয়ে অনেকে এখন মুরগি কেনা ও খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। তাছাড়া নগরীতে মানুষ কম থাকায় চাহিদাও কম। গাড়ি বন্ধ থাকায় বর্তমানে দেশের অন্যান্য স্থান থেকে মুরগি আসছে না। আগে নগরীর চাহিদা মেটাতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকার পাশাপাশি বাইর থেকেও মুরগি আসতো। যা এখন বন্ধ রয়েছে। তবে এখন প্রতিদিন রাতে পটিয়া, হাটহাজারী, দোহাজারী ও লোহাগাড়া থেকে দুই-তিন পিকাপ করে নগরীতে মুরগি আসছে। এগুলো নেওয়ার মানুষও নেই নগরীতে।
এবিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, মুরগি, মাছ, মাংস ও ডিম দ্বারা করোনভাইরাস ছড়াচ্ছে না। বরং এ মুহূর্তে সুস্থ থাকার জন্য বেশি করে আমিষ জাতীয় খাবার খাওয়া দরকার। আমিষ জাতীয় খাবার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তবে যেহেতু ব্রয়লার মুরগি বড় হওয়ার প্রক্রিয়া স্বাস্থ্যসম্মত নয় তাই এটি শরীরের জন্যও স্বাস্থ্যসম্মত নয়। কিন্তু এখনো মুরগি, মাছ, মাংস ও ডিমের মাধ্যমে এ ভাইরাস ছড়ানোর প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে যেহেতু বর্তমান পরিস্থিতি খারাপ তাই কোনো খাবার অর্ধকাঁচা খাওয়া যাবে না। প্রতিটি খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 247 People

সম্পর্কিত পোস্ট