চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ জুন, ২০২০

করোনায় পথপ্রদর্শক শিশু আওয়াদ

১১ এপ্রিল, ২০২০ | ২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাটির ব্যাংকের সঞ্চিত অর্থ দিল মানবতায়

করোনায় পথপ্রদর্শক শিশু আওয়াদ

গেল বছর জব্বারের বলী খেলার মেলা থেকে শখ করে কিনেছিল একটি মাটির ব্যাংক। টিফিনের খরচ থেকে কিছুটা টাকা জমাতো সেই ব্যাংকে। মাঝে-মধ্যে উঁকিমারা ও নাড়াচড়া করে দেখত জমানো টাকা। কয়েকবার ভেঙে ফেলতে চেয়েছিল, কত সঞ্চয় হয়েছে-তা দেখতে। তারপরও অবুঝ মনকে প্রবোধ দিয়েছিল। এবার আর না, সেই ব্যাংকের টাকা তুলে দিল মামার হাতে। করোনায় অসহায় মানুষের সহায়তার জন্যে। এমন নজির সৃষ্টি করল ৮ বছরের শিশু আওয়াদ। ব্যবসায়ীর পুত্র আওয়াদ রেজা করিম নগরীর চকবাজার প্রেসিডেন্সি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। তার মামা ব্যবসায়ী নেতা মো. জাহাঙ্গীর আলম সামাজিক যোগামাধ্যম ফেসবুকে পেজে পোস্ট দিয়েছেন সেই মাটির ব্যাংক ভাঙা ও টাকা গুনার ছবি। তিনি লিখেছেন, ‘মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো ভাগিনা আওয়াদ। ভাগিনার কথার উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি লিখেছেন, বড় মামা আমি কিছু টাকা জমায়ছি। তোমার টাকা দিয়ে আমি কী করব। তুমি গবিরদের দিয়ে দাও সওয়াব হবে। তখন বুঝতে পারলাম, এই ছোট্ট শিশুটির চিন্তা-ভাবনা।’ আনা হল ছোট্ট ভাগিনার শখের মাটির ব্যাংক। মা-ভাগ্নে মিলে ভাঙা হল সেই ব্যাংক। এবার হিসাব-নিকাশের পালা। গণনা করে পেলাম ৭৬০ টাকা। টাকার অঙ্কের চেয়ে শিশুটির মানবিকতা দেখে আমি বিমুগ্ধ। অন্তত দুটি পরিবারকে পরিবারকে সহায়তা করা যাবে।
৩৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজি নুরুল হক সওদাগরের নাতি আওয়াদ। গত সপ্তাহে নানার পরিবার প্রায় সাড়ে ৬ হাজার কর্মহীন-অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। খাদ্যসামগ্রী বিতরণের কর্মযজ্ঞ দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছে শিশু আওয়াদ। পারিবারিক শিক্ষা নিয়ে নিজের সঞ্চিত অর্থ তাই বিলিয়ে দিতে চায় অসহায় মানুষের জন্যে। টাকা অঙ্ক বড় না হলেও কোমলমতি শিশুটির হৃদয়চিত্ত মোহিত করেছে ওই পরিবারকে। এই সমাজকে।
জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এই সমাজে অনেক বিত্তবান রয়েছে। কিন্তু চিত্তবানের অভাব রয়েছে। বিত্তবানেরা এই শিশুর মতো চিত্তবানে এগিয়ে আসলে সমাজের অসহায় মানুষ সহায় পাবে। অন্তত পেট পুরে দু’মুঠো ভাত খেতে পারবে। বিত্তবানদের কাছে অনুরোধ থাকবে, আসুন এই শিশুটির মতো মানবতার হাত বাড়াই, অসহায় মানুষের জন্য। দাঁড়ায় কর্মহীন, হতদরিদ্র্যদের পাশে। বাড়িয়ে দিই সহায়তার হাত।

The Post Viewed By: 156 People

সম্পর্কিত পোস্ট