চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করে মহেশখালীতে গরু জবাই

৯ এপ্রিল, ২০২০ | ১:০৭ অপরাহ্ণ

মহেশখালী সংবাদদাতা

প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করে মহেশখালীতে গরু জবাই

পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে গরু জবাই না করার যে নির্দেশ কক্সবাজার জেলা প্রশাসন থেকে দেয়া হয়েছে, তা মানেনি অনেকেই। মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া বাজার এলাকায় প্রচুর পরিমাণ গরু জবাই করা হয়েছে বলে খবর এসেছে।

প্রশাসনের চোখ এড়াতে অনেকে রাতের বেলায় কাজ সেরে ফেলেছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে। তবে কালারমারছড়া প্রধান বাজার পুলিশ ক্যাম্পের পাশে প্রতিদিন গরু জবাই করলেও আজ বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) গরুর মাংস বিক্রি করতে দেখা যায় নি। তবে কৌশলে গরু জবাই করে ব্যবসায়ীদের (কসাই) উপজেলার কালারমারছড়া বাজারের মধুপুর দরবার গেইটে ও কালারমারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের লাগায়ো মিনি বাজারে গরুর মাংস বিক্রি করতে দেখা গেছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে বেচাকেনাও অব্যাহত রেখেছে।

কালারমারছড়া বাজারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী জানিয়েছে, শবে বরাতে গরু জবাই না করতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করে উল্লেখিত স্থানে গরু জবাই করার ধুম পড়েছে। চলেছে ভাগ-বাটোয়ারার জমজমাট আসর। কালারমারছড়া বাজারে তিনটি গরু জবাই করা হয়েছে। বিক্রিও ভালো হয়েছে। কালারমারছড়া বাজার এলাকার কসাই মোজাম্মেল, এমরান, মাহাবুব নামে এ তিন ব্যক্তি স্থানীয় প্রভাবশালীদের মানিয়ে নিয়ে গরু জবাই করে বিক্রি করে যাচ্ছে। ফলে

সচেতন লোকজনের মাঝে বিষয়টি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। কালারমারছড়ারর কলেজ পড়ুয়া ছাত্র মোহাম্মদ সৌরভ,  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার টাইম লাইনে লিখেছেন; ‘সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি পাড়ার ভেতর গরু জবাই হইছে, এরপর শুনলাম বাজারে দুই জায়গায় গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করছে। ছবি গুলা তুলে পুলিশফাঁড়িতে গেলাম, এস আই স্যারের সাথে কথা বল্লাম, এবং তিনি ৩ জন কন্সটেবল সিভিল ড্রেসে পাঠালেন। কিছুক্ষণপর গিয়ে দেখি এখনো বিক্রি হচ্ছে। ডিসি স্যার মানা করেছেন গরু জবায় না করতে, কিন্তু… ‘

প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্যকারীদের খোঁজখবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে মহেশখালী সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রটেটট সুইচিং মং মার্মা।

The Post Viewed By: 109 People

সম্পর্কিত পোস্ট