চট্টগ্রাম রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

পটিয়া পিটিআইতে যৌন হয়রানির অভিযোগ

১৩ মার্চ, ২০২০ | ২:০৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সেই চার ইন্সট্রাক্টরকে বদলি

পটিয়া পিটিআইতে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রাইমারি টিচার ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) পটিয়ায় ‘যৌন হয়রানির’ অভিযোগ উঠা সেই চার ইন্সট্রাক্টরকে বদলি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (পাঠ্যক্রম ও গবেষণা) মো. রাকিব উদ্দিন স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনে তাদের বদলি করা হয়। আগামী ১৪ মার্চ এর মধ্যে এ চারজন ইন্সট্রাক্টরকে তাদের বর্তমান কর্মস্থল থেকে অব্যহতি নিতে হবে। অন্যথায় ১৫ মার্চ তাৎক্ষণিক বিমুক্ত বলে গণ্য হবেন।
শারীরিক শিক্ষা ইন্সট্রাক্টর মো. ফারুক হোসেনকে চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার দাদনচক ফজলুল হক পিটিআইতে বদলি করা হয়েছে। ইন্সট্রাক্টর সাধারণ মো. জসিম উদ্দীনকে গাইবান্ধা পিটিআইতে বদলি করা হয়েছে। ইন্সট্রাক্টর আইসিটি রবিউল ইসলামকে কুড়িগ্রাম পিটিআইতে ও ইন্সট্রাক্টর চারু ও কারুকলা সবুজ কান্তি আচার্য্যকে পঞ্চগড় পিটিআইতে বদলি করা হয়েছে। এদেরস্থলে পদায়ন করা হয়েছে কুমিল্লার পিটিআই শারীরিক শিক্ষা ইন্সট্রাক্টর মো. রফিকুল ইসলাম, চাঁদপুর জেলার আলীগঞ্জ পিটিআই ইন্সট্রাক্টর সাধারণ মো. শফিকুল ইসলাম, কুমিল্লা পিটিআই এর কম্পিউটার সায়েন্স ইন্সট্রাক্টর মো. হারিছুর রহমান ও কক্সবাজার পিটিআই সাধারণ ইন্সট্রাক্টর মো. আবদুর গফুরকে পিটিআই চট্টগ্রামে পদায়ন করা হয়েছে।
এ সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা চট্টগ্রাম বিভাগীয় উপ-পরিচালক সুলতান মিয়া জানান, প্রশিক্ষণার্থীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা অভিযুক্ত চার ইন্সট্রাক্টরকে প্রত্যাহার করে নিয়েছি। তাদের বদলি এবং তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমরা অধিদপ্তর বরাবর চিঠি দিয়েছি। তবে এখনো তাদের বদলির ব্যাপারে আমরা অধিদপ্তরের কোন চিঠি পাইনি।
উল্লেখ্য, এর আগে গত শনিবার প্রাইমারি টিচার ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) পটিয়ার এই চার ইন্সট্রাক্টররের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠে। যৌন হয়রানির সাথে জড়িত ইন্সট্রাক্টরদের প্রত্যাহার করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ডিপিএড ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের প্রশিক্ষণার্থীবৃন্দ। গত শনিবার পিটিআই পটিয়ায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। অভিযুক্ত ইন্সট্রাক্টররা হলেন ফারুক হোসেন (শারীরিক শিক্ষা), জসিম উদ্দীন (সাধারণ), রবিউল ইসলাম (আইসিটি), সবুজ কান্তি আচার্য্য (চারু ও কারুকলা)। এছাড়া, যৌন হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়ে দেবব্রত বড়–য়া নামের এক ইন্সট্রাক্টর নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুকে বিভিন্ন পোস্ট দেন এবং এক পর্যায়ে তিনি বাসায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 125 People

সম্পর্কিত পোস্ট