চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধ দুই ডাকাত নিহত

১৩ মার্চ, ২০২০ | ২:২৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, টেকনাফ

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধ দুই ডাকাত নিহত

টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ডাকাত নিহত হয়েছে। ১১ মার্চ দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র সৈকত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় র‌্যাবের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন, হাবিলদার খাইরুল বশর, এ এস মাহি আবু কায়সার ও সার্জেন হুমায়ুন কবির। নিহতরা হল, লেদা এলাকার নুর আহমদের ছেলে নুর কামাল (৩৮) প্রকাশ সোনাইয়া ডাকাত, রামু উপজেলার ওমখালী এলাকার আবদুস শুক্কুরের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৫) প্রকাশ ডিবি সাইফুল। তারা দু’জনই চিহ্নিত সন্ত্রাসী জকির গ্রুপের সক্রিয় সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ৬ রাউন্ড গুলি, একটি একনলা বন্দুক ও ৫ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। র‌্যাব-১৫ সিপিসি-১ টেকনাফ ক্যাম্পের ইনচার্জ লে. মির্জা শাহেদ মাহতাব এক্স বিএন বলেন, ‘গোপন সংবাদে জানতে পারি রাত সাড়ে বারোটার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র সৈকত এলাকায় কুখ্যাত ডাকাত জকির গ্রুপের সদস্য সংঘবদ্ধভাবে ডাকাতি করার প্রস্ততি নিচ্ছে। খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি দল ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এসময় অস্ত্রধারী ডাকাত দলের সদস্যরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদেরকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। বেশ কিছুক্ষণ গুলি বিনিময়ের পর কুখ্যাত ডাকাত জকির গ্রুপের সদস্যরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় র‌্যাবের তিন সদস্য আহত হয়। ডাকাত দলের সদস্যরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ৬ রাউন্ড গুলি, একটি একনলা বন্দুক, ৪০ হাজার ৫০০ নগদ টাকা, ৫ রাউন্ড তাজা কার্তুজসহ নুর কামাল ও মো. সাইফুলকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার রুজু করা হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে’।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 115 People

সম্পর্কিত পোস্ট