চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

সন্দ্বীপে পানি উপমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি বর্ষার আগে বেড়িবাঁধ নির্মাণ না হলে কার্যাদেশ বাতিল

৯ মার্চ, ২০২০ | ২:৫১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা হ সন্দ্বীপ

সন্দ্বীপে পানি উপমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি বর্ষার আগে বেড়িবাঁধ নির্মাণ না হলে কার্যাদেশ বাতিল

বর্ষার আগে সন্দ্বীপের ১১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণ করতে না পারলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কার্যাদেশ বাতিল করা হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। গতকাল রবিবার সন্দ্বীপের মগধরা ইউনিয়নের ছোঁয়াখালী ঘাটসংলগ্ন বেড়িবাঁধ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনের সময় তিনি কথাগুলো বলেন। কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, আমি বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখেছি। এখন পর্যন্ত মাত্র ৪৪ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে কাজের অগ্রগতি আরো বেশি হওয়ার দরকার ছিল। নির্বাহী প্রকৌশলী ও তত্বাবধায়ক প্রকৌশলীকে বলেছি- তারা দ্রুত ঠিকাদারদের সাথে বসে বর্ষার আগেই কাজ সম্পন্ন করার নির্দেশনা দিবে। জুন মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে না পারলে ঠিকাদারদের কার্যাদেশ বাতিল করা হবে। উপমন্ত্রী আরো জানান, সন্দ্বীপে সরকারের ৩৩ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। ইতোমধ্যে ২১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ১১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। আগামী ২ মাসের মধ্যে বাকী ২২ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের জন্য ৫২০ কোটি টাকার

একটি প্রকল্প পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে এবং চলতি বছরে প্রকল্পটি একনেক সভায় অনুমোদন হয়ে কাজ শুরু হবে বলে আশা করছি। সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্দ্বীপকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে সন্দ্বীপের সার্বিক উন্নয়ন করে যাচ্ছে। চারপাশে বেড়িবাঁধের কাজ শেষ হওয়ার পর বাঁধের উপরে রিং রোড নির্মাণ করে সন্দ্বীপকে পর্যটন এলাকা হিসেবে তৈরি করা হবে। রবিবার সকাল ১০টায় উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম সন্দ্বীপ এসে বিভিন্ন এলাকায় চলমান বেড়িবাঁধ নির্মাণকাজ পরিদর্শন করেন। উপমন্ত্রী বিকেলে সন্দ্বীপ পৌরসভার কোস্টগার্ড মাঠে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ. লীগের সভাপতি মাস্টার শাহজাহান বিএ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিদর্শী সৌম্বধী চাকমা, ওসি শেখ শরিফুল আলম, ভাইস চেয়ারম্যান মাঈন উদ্দিন মিশন, প্রেসক্লাব সভাপতি মোহাম্মদ রহিম উল্ল্যা, আলাউদ্দীন বেদন, মোক্তাদের মাওলা সেলিম, এস. এম আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 153 People

সম্পর্কিত পোস্ট