চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

বিএনপির ৩২ কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে ১৮৯ মামলা

৪ মার্চ, ২০২০ | ২:৪৩ পূর্বাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী

বিএনপির ৩২ কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে ১৮৯ মামলা

চসিক নির্বাচন লালখান বাজার ওয়ার্ডের প্রার্থী আবদুল হালিমের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ২৬টি মামলা ‘প্রার্থীরা রাজনৈতিক, হয়রানিমূলক ও গায়েবি মামলার শিকার হয়েছেন’

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বিএনপির ৪১ প্রার্থীর মধ্যে ৩২ জনের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে ১৮৯টি। বিএনপি নেতাদের দাবি, গত এক দশকে সরকারবিরোধী আন্দোলন-সংগ্রাম করতে গিয়ে তারা এসব মামলার শিকার হয়েছেন। বর্তমানে সবগুলো মামলাই বিচারাধীন এবং তারা জামিনে রয়েছে।
মামলা প্রসঙ্গে মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর দৈনিক পূর্বকোণকে দাবি করে বলেন, ‘বিগত এক দশকে সরকারবিরোধী আন্দোলন-সংগ্রাম করতে গিয়ে বিএনপি’র কাউন্সিলর প্রার্থীরা এসব রাজনৈতিক, হয়রানিমূলক ও গায়েবি মামলার শিকার হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কিংবা মাদকের কোন মামলা নেই। বর্তমানে সবগুলো মামলায় কাউন্সিলর প্রার্থীরা জামিনে রয়েছেন’।

চসিক নির্বাচনে ৪১টি সাধারণ ও ১৪টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ওয়ার্ড রয়েছে। নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী বিএনপি প্রার্থীদের মধ্যে ৯ জনের কোন মামলা নেই। অবশিষ্ট ৩২ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। এতে বিশেষ ক্ষমতা, বিস্ফোরক, দ্রুত বিচার ও অস্ত্র আইনসহ বিভিন্ন ধারায় মামলা রয়েছে।

বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে কোন মামলা নেই, এমন প্রার্থী রয়েছেন ৯ জন। তাঁরা হলেন, ১ নং দক্ষিণ পাহাড়তলীতে সিরাজুল ইসলাম রাসেদ, ৩ নং পাঁচলাইশে মো. ইলিয়াছ, ১১ নং দক্ষিণ কাট্টলীতে মো. সোহরাব হোসেন চৌধুরী, ১৭ নং পশ্চিম বাকলিয়ায় এ কে এম আরিফুল ইসলাম, ২০ নং দেওয়ান বাজারে মো. লিয়াকত আলী, ২১ নং জামালখানে আবু মো. মহসিন চৌধুরী, ২৯ নং পশ্চিম মাদারবাড়িতে মো. সালাহ উদ্দিন, ৩২ নং আন্দরকিল্লায় নুর মোহাম্মদ লেদু ও ৩৫ নং বক্সিরহাটে এডভোকেট আলহাজ তারিক আহমদ। বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে বেশি মামলা রয়েছে ১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ডের প্রার্থী আবদুল হালিম (শাহ আলম) এর বিরুদ্ধে। তাঁর বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ২৬টি মামলা রয়েছে। এরপর ১৮টি মামলা রয়েছে ৯ নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের প্রার্থী আবদুস সাত্তার সেলিমের বিরুদ্ধে। ১৫টি করে মামলা রয়েছে ৩৬ নং গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডের প্রার্থী মো. হারুন (ডক) ও ৩৯ নং দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ডের প্রার্থী সরফরাজ কাদের রাসেলের। ১৩ নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম দুলালের রয়েছে ১৩টি মামলা।

এছাড়া সর্বনিম্ন ১ থেকে সর্বোচ্চ ৮টি মামলা রয়েছে ১৮ প্রার্থীর বিরুদ্ধে। তাঁরা হলেন, ২ নং জালালাবাদ মো. ইয়াকুব চৌধুরী, ৪ নং চান্দগাঁও সাবেক কাউন্সিলর মাহাবুবুল আলম, ৫ নং মোহরা মোহাম্মদ আজম, ৬ নং পূর্ব ষোলশহর মো. হাসান লিটন, ৭ নং পশ্চিম ষোলশহর মো. ইসকান্দর মির্জা, ৮ নং শুলকবহর হাসান চৌধুরী, ১০ নং উত্তর কাট্টলী মো. রফিক উদ্দিন চৌধুরী, ১২ নং সরাইপাড়া শামসুল আলম, ১৫ নং বাগমনিরাম চৌধুরী সাইফুদ্দিন রাসেদ সিদ্দিকী, ১৬ নং চকবাজার এ কে এম সালাউদ্দিন কাউসার লাবু, ১৮ নং পূর্ব বাকলিয়া মো. আজিজুল হক মাসুম, ১৯ নং দক্ষিণ বাকলিয়া ইয়াসিন চৌধুরী আছু, ২২ নং এনায়েত বাজার এম এ মালেক, ২৩ নং উত্তর পাঠানটুলী মো. মহসিন, ২৪ উত্তর আগ্রাবাদ এস এম ফরিদুল আলম, ২৫ নং রামপুর শহীদ মো. চৌধুরী, ২৬ নং উত্তর হালিশহর মো. আবুল হাশেম, ২৭ নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ মোহাম্মদ সেকান্দর, ২৮ নং পাঠানটুলী এস এম জামাল উদ্দিন জসিম, ৩০ নং পূর্ব মাদারবাড়ি হাবিবুর রহমান, ৩১ নং আলকরণ দিদারুর রহমান লাভু, ৩৩ নং ফিরিঙ্গীবাজার সাদেকুর রহমান রিপন, ৩৪ নং পাথরঘাটা মোহাম্মদ ইসমাইল বালি, ৩৭ নং উত্তর মধ্যম হালিশহর মোহাম্মদ ওসমান, ৩৮ নং দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর হানিফ সওদাগর, ৪০ নং উত্তর পতেঙ্গা মোহাম্মদ হারুন ও ৪১ দক্ষিণ পতেঙ্গা মো. নুরুল আবছার।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 294 People

সম্পর্কিত পোস্ট