চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কোটি টাকা বর্ষার জলে যাবার শংকা স্থানীয়দের বোয়ালখালী পৌর সদর

৪ মার্চ, ২০২০ | ১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

সেকান্দর আলম বাবর, বোয়ালখালী

ড্রেন ছাড়াই সড়ক সংস্কার!

কোটি টাকা বর্ষার জলে যাবার শংকা স্থানীয়দের বোয়ালখালী পৌর সদর

মইজ্জ্যারটেক-কানুনগোপাড়া-উদরবন্যা সড়ক নির্মাণ কাজে সওজ নির্মাণ ব্যয় ধরেছে ৭১ কোটি টাকা। এতে কানুনগোপাড়া অংশে খরচ ধরা হয়েছে ২৭ কোটি টাকা। তবে বিপত্তি ঘটে কালভার্ট ও ড্রেন নিয়ে। কোটি টাকায় এ সড়ক সংস্কার কাজে প্রয়োজনীয় কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে না। এছাড়া উপজেলা সদরের বুড়িপুকুর পাড় থেকে খাদ্য গুদাম পর্যন্ত নেই ড্রেন নির্মাণের কোনো পদক্ষেপ। এতে সড়ক সংস্কারের কোটি টাকা বর্ষায় জলে যাবে বলে মন্তব্য ভুক্তভোগীদের।
সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলা সদরে ২৪ ফুটের সড়কটি ২৪ ফুটই রেখে পূর্বের তুলনায় ছয় ইঞ্চি থেকে একফুট উঁচু করা হয়েছে। এতে দু’পাশে ড্রেন না থাকায় পানি নিচে গড়িয়ে পড়ে জমে থাকছে। আবার দু’ পাশে মার্কেট, হাসপাতালের বাউন্ডারি হওয়াতে পানি কোথাও নামতে পারছে না। তাতে বৃষ্টি হলে পানি জমে রাস্তায় খেলা করে ঢেউ। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি দিনভর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে এমন পরিস্থিতি দেখা যায়। এতে স্থানীয়দের মাঝে কাজের পরিকল্পনা নিয়ে হতাশার চিত্র ফুটে উঠে।

তারা বলেন, প্রকৌশলীরা কীভাবে জনস্বার্থ না দেখে সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা করে। সড়ক করার পর এক বর্ষাও যায় না, আবার ভেঙে যায়। শুধু ভাল পরিকল্পনার অভাবে এটা হয়। এতে জনগণের উপকারের চেয়ে ক্ষতিটাই বেশি হয়। এ প্রসঙ্গে সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (সওজ) ও বোয়ালখালীর দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা টোয়েন চাকমা জানান, উপজেলা সদরে ড্রেন নির্মাণের কোনো নোট প্রকল্পে নেই।

সড়কের পাশের দোকানদার আমানত উল্লাহ টোহেল বলেন, সড়কের মূল সমস্যা বৃষ্টির পানি। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে হাঁটাচলা মুশকিল হয়ে পড়ে। রাস্তার কিনারায় পানি জমে ব্যবসা-ট্যবসা লাটে উঠে। রাস্তায় জমে থাকা পানি কোথাও যেতে না পেরে ঢেউ খেলে। এতে দুর্ভোগ পোহাতে হয় খেটে খাওয়া মানুষসহ পথচারীদের। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরাও পড়ে বিপাকে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পৌর মেয়র হাজী আবুল কালাম আবু বলেন, ড্রেন নির্মাণের পরিকল্পনা আছে। পৌরসভা কার্যালয় থেকে পানি যেন মীরপাড়া দিয়ে চলে যায় এ ব্যবস্থা করা হবে। তিনি বলেন, সওজ সড়কের কাজ করছে, তবে সমন্বয় নেই পৌরসভার সাথে। সমন্বয়হীনতার জন্য এ দুর্ভোগ বলে তিনি দাবি করেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 95 People

সম্পর্কিত পোস্ট