চট্টগ্রাম রবিবার, ৩১ মে, ২০২০

বৈধ ২৭৬, বাতিল ১১

২ মার্চ, ২০২০ | ২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বৈধ ২৭৬, বাতিল ১১

চসিক নির্বাচন : মনোনয়ন বাছাই প্রার্থী মেয়র পদে ৭, সংরক্ষিত ৫৮ ও সাধারণ ওয়ার্ডে ২১১ জন

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে গতকাল রবিবার ১১ জনের মনোনয়ন বাতিল করেছেন রিটার্নিং অফিসার। এরমধ্যে রয়েছেন মেয়র পদে দুই ও সাধারণ ওয়ার্ডে ৯ জন। সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে কোনো প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়নি। বর্তমানে বৈধ প্রার্থী হচ্ছেন ২৭৬ জন। মেয়র পদে ৭ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিরর পদে ৫৮ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ২১১ জন।

রিটার্নিং অফিসার মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, স্বতন্ত্র পদে দাখিল করা মেয়র পদে দুই জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। সমর্থনসূচক স্বাক্ষর মিল না থাকায় তাদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। কাউন্সিলর পদে ঋণ খেলাপি, জামিনদার হিসেবে খেলাপি ও সমর্থন হিসেবে অন্য ওয়ার্ডের ভোটারের স্বাক্ষর হওয়ার অভিযোগে ৯ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। তবে বাতিলের বিরুদ্ধে তিন দিনের মধ্যে আপিলের সুযোগ রয়েছে। মেয়র স্বতন্ত্র প্রার্থী খোকন চৌধুরী ও তানজির আবেদীনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, জাতীয় পার্টির সোলায়মান আলম শেঠ, ইসলামী ফ্রন্টের মাওলানা এম এ মতিন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আবুল মনজুর, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের মুহাম্মদ ওয়াহেদ মুরাদ ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. জান্নাতুল ইসলাম।

সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে কোনো প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়নি। বৈধ প্রার্থী হচ্ছেন ৫৮ জন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। তারা হলেন, ৪নং ওয়ার্ডের মো. সাইফুল্লাহ খান, ৭নং ওয়ার্ডের মো. সোহেল মাহমুদ, ১৮নং ওয়ার্ডের আবু তৈয়ব, ১৯নং ওয়ার্ডের মহিউদ্দিন মাহমুদ ও মো. আবদুল মান্নান, ২০নং ওয়ার্ডের মো. হাফিজুল ইসলাম, ৩২নং ওয়ার্ডের মো. হাবিবুল্লাহ। ঋণ খেলাপির অভিযোগে এই ৭ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। সমর্থন হিসেবে ভিন্ন ওয়ার্ডের ভোটার হওয়ার কারণে ১৫নং ওয়ার্ডের মোহাম্মদ আলী আকবর ও জামিনদার খেলাপি হিসেবে ৩৮নং ওয়ার্ডের মো. হাসান মুন্নার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।
সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করা ৫৮ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং অফিসার। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, ১নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর সৈয়দা কাশফিয়া নাহরিন, ফেরদৌস বেগম মুন্নী, মোবাশ্বেরা বেগম।
২নং ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জোবাইরা নার্গিস খান, শামসুন নাহার, রোকেয়া বেগম, সিরাজুন নুর বেগম, অশ্রু চৌধুরী।

৩নং ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থী হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী জোহরা বেগম, নাহিদা ইয়াছমিন, বর্তমান কাউন্সিলর জেসমিন পারভীন জেসি, নুর তাজ বেগম।
৪নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, তছলিমা বেগম (নুরজাহান), নাদিরা সুলতানা, আবিদা আজাদ, মোছাম্মৎ আয়শা আক্তার।
৫নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মনোয়ারা বেগম, নবুয়াত আরা সিদ্দিকা, আঞ্জুমান আর বেগম, রেজিয়া বেগম।
৬নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্র্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহীন আক্তার রোজী, শামীমা নাসরিন, সালেহা বেগম, মাহমুদা সুলতানা, শাহিদা বেগম পারভীন, কাজী শাহিনা সুলতানা ডলি।
৭নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থী হলেন, চৈতী বসু মল্লিক, আওয়ামী লীগ প্রার্থী রুমকি সেনগুপ্ত, আন্জুমানআরা বেগম, পারভীন আকতার চৌধুরী।
৮নং ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আরজুন নাহার মান্না, জিন্নাত সুলতানা, আলতাজ বেগম বুবলী, বর্তমান কাউন্সিলর আওয়ামী লীগ প্রার্থী নীলু নাগ, পম্পি দাশ।
৯নং ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, ফারহানা জাবেদ, গুলজার বেগম রুবি, খালেদা বোরহান, জাহেদা বেগম পপি।
১০ নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, রাধা রানী দেবী, আওয়ামী লীগ প্রার্থী হুরে আরা বেগম, সুপ্তি তলাপাত্র ও জেসমিনা খানম।
১১নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী জিন্নাত আরা বেগম, ফেরদৌসি আকবর, বিবি মরিয়ম, কামরুন নাহার লিজা।
১২ নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী আফরোজা জহুর (আফরোজা কালাম) ও শাহিদা খানম।
১৩ নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী লুৎফুন্নেছা দোভাষ বেবী ও নন্দিতা দাশগুপ্ত, মনোয়ারা বেগম
১৪ নং ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন শাহানুর বেগম ও জাহিদা হোসাইন।

সাধারণ ওয়ার্ড : সাধারণ ওয়ার্ডে ২২০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। যাচাই-বাছাইয়ে ঋণ খেলাপি, সমর্থন হিসেবে অন্য ওয়ার্ডের ভোটার ও জামিনদার খেলাপি হিসেবে ৯ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।
১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, মো. ইলিয়াছ, মো. ইকবাল হোসেন, আহমদ নূর, আওয়ামী লীগ প্রার্থী গাজী মোহাম্মদ শফিউল আজিম, বর্তমান কাউন্সিলর আওয়ামী লীগের তৌফিক আহমদ চৌধুরী, ডা. মো. নিয়াজ মোরেশদ, কাজল নাথ, হাবিব উল্লাহ বাহার।
২নং জালালাবাদ ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ ইব্রাহিম, বর্তমান কাউন্সিলর মো. সাহেদ ইকবাল (বাবু), মো. আবুল কালাম আবু, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়া, মো. এয়াকুব চৌধুরী।
৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কফিল উদ্দিন খান, মো. শফিকুল ইসলাম, মো. ইলিয়াছ আহমদ লেদু, মো. আমির হোসেন, মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, মো. সেলিম উদ্দিন, মো. ইলিয়াছ, মো. আবুল কালাম, মো. জসিম উদ্দিন, মো. মোরশেদ হোসেন, মো. ইকবাল।
৪নং চান্দগাঁও ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মো. সাইফুল্লাহ খানের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. আনিসর রহমান, মো. নাজমুল হক, বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. সাইফুদ্দিন খালেদ সাইফু, এস এম হুমায়ুন কবির, জামাল উদ্দীন, নাছির উদ্দিন, মো. এসরারুর হক, মাহবুবুল আলম, জাহেদ গিয়াস উদ্দীন আহমেদ, মো. ইউসুফ, মো. আমজাদ হোসেন।
৫নং মোহরা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর বিএনপির মো. আজম, জানে আলম জিকু, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোহাম্মদ কাজী নুরুল আমিন (মামুন), মো. ইব্রাহিম হোসেন, আইয়ুব আলী চৌধুরী, মো. নাজিম উদ্দীন চৌধুরী, খালেদ হোসেন খান, মো. জসিম উদ্দীন, মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম।
৬নং পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মুহাম্মদ হাসান লিটন ও এম আশরাফুল আলম।
৭নং পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মোহাম্মদ সোহেল মাহমুদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বর্তমানে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. শামীম, মো. এয়াকুব, মো. রিজুয়ান উদ্দীন চৌধুরী, বর্তমান কাউন্সিলর ও আ. লীগ প্রাথী মো. মোবারক আলী ও মো. ইসকানদার মির্জা।
৮নং শুলকবহর ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর ও আ. লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. মোরশেদ আলম, মো. আবুল হাসান সুমন, মোহাম্মদ মহসীন, মো. জমির উদ্দিন ও হাসান চৌধুরী।
৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আব্দুস সাত্তার সেলিম, আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুল আবছার মিয়া, বর্তমান কাউন্সিলর আ. লীগের মো. জহুরুল আলম জসিম, মোহাম্মদ ফজলে আজিম দুলাল।
১০ নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর আওয়ামী লীগ প্রার্থী নেছার উদ্দিন আহমেদ, মো. রফিক উদ্দীন চৌধুরী ও মনোয়ারুল আলম চৌধুরী।
১১নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. ইসমাইল, মো. সোহারাব হোসেন চৌধুরী, খন্দকার এনামু হক, বর্তমান কাউন্সিলর মোর্শেদ আকতার চৌধুরী, মো. নুরুল হুদা চৌধুরী, মো. নুরুল ইসলাম।
১২নং সরাইপাড়া ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর মো. সাবের আহম্মেদ, মো. সাইফুল আলম, মো. আসলাম হোসেন, শামসুল আলম, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. নুরুল আমিন।
১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. জাহাংগীর আলম দুলাল, মো. বাদশা আলমগীর, মো. মাহামুদুর রহমান, কাজী অতনু জামান।
১৪নং লালখান বাজার ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আব্দুল হালিম (শাহ আলী), বর্তমান কাউন্সিলর আবুল ফজল করিম আহমেদ, আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল, মো. আবদুল আলিম স্বপন, দিদারুল আলম মাসুম, তৌহিদ আজিজ, মো. আবদুল কাদের।
১৫নং বাগমনিরাম ওয়ার্ডে সমর্থনকারী হিসেবে ভিন্ন ওয়ার্ডের ভোটার দেওয়ার অভিযোগে মোহাম্মদ আলী আকবরের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বর্তমানে বৈধ প্রার্থী হচ্ছেন, চৌধুরী সায়েফুদ্দীন রাশেদ সিদ্দিকী, বর্তমান কাউন্সিলর ও আ. লীগ প্রার্থী মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও আরিফুল ইসলাম।
১৬নং চকবাজার ওয়ার্ডের ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, এ কে এম সালাউদ্দীন কাউসার লাভু, মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন, কায়সার আহমদ, বতর্মান কাউন্সিলর ও আ. লীগ প্রার্থী সৈয়দ গোলাম হায়দার মিন্টু, সাহেদুল আজম শাকিল. নূর মোস্তফা টিনু।
১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থী হলেন, এ কে এম আরিফুল ইসলাম (ডিউক), আ. লীগ প্রার্থী মোহাম্মদ শহিদুল আলম, মো. মাসুদ করিম, শোয়েব খালেদ।
১৮নং পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মোহাম্মদ তৈয়বের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বর্তমানের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর মো. হারুন উর রশিদ ও মো. আজিজুল হক মাসুম।
১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মহিউদ্দিন মাহমুদ রণি ও মো. আবদুল মান্নানের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। এখন বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আলহাজ মো. ইয়াছিন চৌধুরী (আছু), এস এম দিদারুল আলম, আ. লীগ প্রার্থী মো. নুরুল আলম, মো. আজিজুর রহমান।
২০নং দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে হাফিজুল ইসলাম মজুমদার মিলনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, রফিকুল আলম বাপ্পী, মিটল দাশগুপ্ত, মো. লিয়াকত আলী।
২১নং জামালখান ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আবু মোহাম্মদ মহসীন চৌধুরী, আব্দুল হান্নান, ফরহাদুল ইসলাম, বর্তমান কাউন্সলর শৈবাল দাশ সুমন, সুচিত্রা গুহ টুম্পা, আব্দুল নাসের, বিজয় কুমার চৌধুরী, রাজীব দাশ সুজয়।
২২নং এনায়েত বাজার ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, সাব্বির চৌধুরী, আলহাজ মো. আব্দুল মালেক, আ. লীগের মোহাম্মদ সলিম উল্লাহ।
২৩নং উত্তর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আসিফ খান, মুহাম্মদ রিয়াদ খান, বর্তমান কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদ, মোহা. মহসীন, সিরাজুল ইসলাম, মো. জাহেদ।
২৪নং উত্তর আগ্রাবাদ ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. রকিবুল আমিন, মো. রাশেদুল ইসলাম, মো. জাবেদ নজরুল ইসলাম, বর্তমান কাউন্সিলর নাজমুল হক, এস এম ফরিদুল আলম।
২৫ রামপুরা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আবদুস সবুর লিটন, বর্তমান কাউন্সিলর এস এম এরশাদ উল্লাহ ও শহীদ মো. চৌধুরী।
২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মোহাম্মদ হোসেন, মো ইলিয়াছ, মো. আবুল হাশেম, মো. নাঈম উদ্দিন, মো. ইমতিয়াজ সবুজ, নাজিমুল ইসলাম মজুমদার, মো. আজিজুর রহমান বাবুল, মো. মহসীন আলী চৌধুরী।
২৭নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মোহাম্ম ইসকান্দর মির্জা, বর্তমান কাউন্সিলর এইচ এম সোহেল, মোহাম্মদ সেকান্দর, মো, শেখ জাফরুল হায়দার চৌধুরী।
২৮নং পাঠানটুলী ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর মো. আব্দুল কাদের, এ বি এম মোস্তাফা কামাল, আ. লীগ প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম বাহাদুর, এস এম জামাল উদ্দিন জসিম, মো. মনির উল্লাহ, আব্দুর রহিম আরসেনী।
২৯নং পশ্চিম মাদারবাড়ি ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর আ. লীগ প্রার্থী গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের, মো. আজিজ উর রশিদ, মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন।
৩০ নং পূর্ব পূর্ব মাদারবাড়ি ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আ. লীগ প্রার্থী আতাউল্লাহ চৌধুরী, বর্তমান কাউন্সিলর মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, চৌধুরী জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর, হাবিবুর রহমান।
৩১নং আলকরণ ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. হানিফ ভুঁইয়া, আ. লীগ প্রার্থী মো. আব্দুস সালাম, মোহাম্মদ দিদারুর রহমান, বতর্মান কাউন্সিলর তারেক সোলায়মান সেলিম।
৩২নং আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মো. হাবিব উল্লাহ’র মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, সুজিত সরকার, বর্তমান কাউন্সিলর আ. লীগ প্রার্থী জহর লাল হাজারী, নুর মোহাম্মদ লেদু, মোহাম্মদ নোমান লিটন, এ কে এম জাবেদুল আলম।
৩৩নং ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. মেজবাহ উদ্দিন মিন্টু, বর্তমান কাউন্সিলর হাসান মুরাদ, এইচ এম হোসাইনুর রশিদ, আ. লীগ প্রার্থী মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, ছাদেকুর রহমান, রফিকুল হোসেন বাচ্চু।
৩৪নং পাথরঘাটা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আ. লীগ প্রার্থী পুলক খাস্তগীর, বর্তমান কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইসমাইল বালি, মোহাম্মদ দিদারুল আলম, বিজয় কৃষ্ণ দাশ, অনুপ বিশ্বাস, ঝুলন দেবনাথ।
৩৫নং বক্সিরহাট ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হাজি নুরুল হক ও এডভোকেট তারিক আহমদ।
৩৬ নং গোসাইলডেঙ্গা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্র্র্র্থীরা হলেন, আ. লীগ প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর হাজী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, মো. হারুন, মো. সাকির, আ. লীগ নেতা মো. মোর্শেদ আলী, মো. সাইফুল আলম চৌধুরী।
৩৭নং উত্তর মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. ওসমান, আ. লীগ প্রার্থী মো. হোসেন মুরাদ, মোহাম্মদ এনামুল হক, মো. ইবনে মবিন ফারুক, মোহাম্মদ শফিউল আলম।
৩৮নং দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডের জামিনদার খেলাপির অভিযোগে মো. হাসান মুন্নার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. আজম উদ্দিন, মোহাম্মদ বদিউর রহমান, বর্তমান কাউন্সিলর আ. লীগ প্রার্থী গোলাম মো. চৌধুরী, মো. সালাউদ্দিন, হানিফ সওদাগর, মোহাম্মদ হাসান মুরাদ, মোহাম্মদ আবু নাছের।
৩৯নং দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর আ. লীগ প্রার্থী জিয়াউল হক সুমন, সরফরাজ কাদের, হাসান মাহমুদ আনসারী।
৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, আ. লীগ প্রার্থী আব্দুল বারেক, মোহাম্মদ হারুন, মো. ফরিদুল আলম, জয়নাল আবেদীন চৌধুরী।
৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ডের বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মো. ফজল করিম, মো. মঞ্জুর আলম, মো. নুরুল আবছার, নুরুল আবছার, আবদুর রহিম, মোহাম্মদ আলমগীর, মো. ওয়াহিদুল আলম চৌধুরী, বর্তমান কাউন্সিলর ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী, মো. রফিক।

The Post Viewed By: 97 People

সম্পর্কিত পোস্ট