চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

দীঘিনালা মাইনী নদীতে ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ

১ মার্চ, ২০২০ | ৩:৩১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, দীঘিনালা

দীঘিনালা মাইনী নদীতে ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় মাইনী নদীর ওপর আন্তর্জাতিকমানের হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সম্পূর্ণ চায়না প্রযুক্তিতে নির্মাণ করা হবে দৃষ্টিনন্দন এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম।

ড্যামটি নির্মিত হলে উপজেলার কৃষিক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা। পাশাপাশি দেশি-বিদেশি পর্যটকদের বিনোদন কেন্দ্র হিসাবেও এ ড্যাম অবদান রাখবে। ইতিমধ্যে ড্যাম নির্মাণের স্থান নির্ধারণ এবং সুবিধাভোগী এলাকাসমূহের প্রাথমিক জরিপ প্রক্রিয়াও সম্পন্ন করা হয়েছে। সম্প্রতি এই প্রকল্প সম্পর্কে স্থানীয় লোকজনের মতামত নিতে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় মতবিনিময় সভা। সভায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যামের নানা প্রকার সুযোগ-সুবিধার বিষয়ে প্রজেক্টরের মাধ্যমে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। প্রতিবেদনে উঠে আসে মাইনী নদীর ওপর আন্তর্জাতিক মানের এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মিত হলে উপজেলার বোয়ালখালী, কবাখালী ও দীঘিনালা ইউনিয়নে কৃষিক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে। এই ড্যামের মাধ্যমে তিন ইউনিয়নের কমপক্ষে ১৫০০ হেক্টর জমি সেচ সুবিধার আওতায় আসবে। এছাড়া ড্যামের কারণে কোনো কৃষিজমি জলমগ্ন হওয়া কিংবা ব্যক্তিবিশেষ কারো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশংকা নেই বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

ড্যামের জরিপ কাজে নিয়োজিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী জাকির হোসেন জানান, উপজেলার বাবুপাড়া সংলগ্ন মাইনী নদীতে এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মিত হলে নদীর তলদেশে উজানের দিকে সাত কিলোমিটার জলাশয় সৃষ্টি হবে। যা কৃষকের সেচ সুবিধা নিশ্চিতের পাশাপাশি মৎস্য আহরণ করে জীবিকা নির্বাহের সুযোগ পাবে স্থানীয় লোকজন। তাছাড়াও ভ্রমণপিপাসু লোকজন ইঞ্জিনচালিত নৌকাযোগে ভ্রমণের সুযোগ পাবে। সম্পূর্ণ চায়না প্রযুক্তিতে নির্মিত হবে আন্তর্জাতিকমানের এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম। তবে বর্ষা মৌসুমে এই ড্যামের কোনো কার্যক্রম চলমান থাকবে না। কারণ বর্ষা মৌসুমে ড্যামের সবকটি গেট খোলা থাকবে। তাছাড়াও ড্যামের আওতাধীন নদীর উজানের দিকে এক হাজার মিটার ড্রেজিং করা হবে বলে জানান তিনি।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের চট্টগ্রাম দক্ষিণÑপূর্বাঞ্চলীয় প্রধান প্রকৌশলী মীর মোশারফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজি মো. কাশেম। বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্যাহ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ওঙ্কার বিশ্বাম, মৎস্য কর্মকর্তা অবর্ণা চাকমা ও দীঘিনালা ইউপি চেয়ারম্যান প্রজ্ঞান জ্যোতি চাকমা প্রমুখ। বক্তাগণ মাইনী নদীর ওপর আন্তর্জাতিক মানের হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করায় সরকার ও প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। সভায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের পরিকল্পনা বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ.কে.এম তাহমিদুল ইসলাম জানান, সেচ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার মাইনী নদী, চট্টগ্রাম জেলার শ্রীমাই খাল এবং রাঙামাটির সাজেক ভ্যালিতে তিনটি হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মাণের জন্য সমীক্ষা করা হয়েছে। সরকার দেশে এই প্রথম চায়না প্রযুক্তিতে আন্তর্জাতিক মানের এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। প্রকল্পের কাজ শুরু হলে তিন বছরের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 151 People

সম্পর্কিত পোস্ট