চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

আনোয়ারা জুড়ে মাটি কাটার মহোৎসব

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৫:১২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, আনোয়ারা

হুমকির মুখে পরিবেশ

আনোয়ারা জুড়ে মাটি কাটার মহোৎসব

আনোয়ারাজুড়ে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। নিয়মনীতির কোন কিছুই মানছে না। দেদারছে ফসলি জমি, পুকুর, টিলা, নদী সাগর, মাছের ঘের ও বেড়িবাঁধের আশপাশ এলাকার মাটি খনন করে অন্যত্রে বিক্রি করছে কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহল।

ফলে একদিকে কৃষি জমির টপসয়েল চলে যাওয়ায় মাটি উর্বরতা হারাচ্ছে। অন্যদিকে পরিবেশও হুমকির মুখে পড়ছে। মাটি বিক্রির মহোৎসবে এলাকার সর্বমহলে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। অপরদিকে মাটি কাটার বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে উপজেলা প্রশাসন। গত সোমবার রাত ১০টায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানভির হাসান চৌধুরী সিইউএফএল এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাটি কাটার সরঞ্জাম ভেঙে দিয়েছে। তবে এ সময় কাউকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়নি। এ সময় তার সাথে ছিলেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জামিরুল ইসলাম ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফেরদৌস হোসেন। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানভীর হাসান চৌধুরী জানায়, মাটি কাটার বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। গত ২দিন ধরে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে। মাটি কাটার সরঞ্জামও জব্দ করা হচ্ছে।

উপজেলার বারশত, রাঙ্গাদিয়া, হাইলধর, মালঘর, খাসখামা, ডুমরিয়া, বড়–য়াপাড়া, পরুয়াপাড়া, বারখাইন, বৈরাগ, আঁইর মঙ্গল, বটতলী, জুইঁদ-ি, খুরইস্কুল, বারশত, পারকি, রায়পুর, সরেঙ্গা, বরুমচড়া, পরৈকোড়াসহ বিভিন্ন গ্রামে দিনরাত স্কেভেটর দিয়ে মাটি কাটা চলছে। এ মাটি ট্রাকে করে বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ দেয়া হচ্ছে। রায়পুর ইউনিয়নের পরুয়াপাড়া এলাকায় বেড়িবাঁধের পাশ থেকে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে চক্রটি। সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বেড়িবাঁধ হুমকির মুখে পড়েছে। যেকোন সময় বেড়িবাঁধ ধসে পড়তে পারে। স্কেভেটর ও ড্রাম্পার দিয়ে রাতদিন মাটি বিক্রির ঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে উপজেলার ১১ ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহলটি মাটি বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে। উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমএ মান্নান চৌধুরী, বৈরাগ ইউপি চেয়ারম্যান মো. সোলায়মান, বারশত ইউপি চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ুম শাহ, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান জানে আলম মাটি কাটার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এছাড়া ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ জোবায়ের আহমেদ ও আনোয়ারা থানার ওসি দুলাল মাহমুদকে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোন অবস্থাতে মাটি কাটা যাবে না। সে যত বড় প্রভাবশালী হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হোক।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমদ জানান, মাটি কাটার বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসন অভিযান অব্যাহত রেখেছে। কোন অবস্থাতেই ছাড় দেয়া হবে না।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 76 People

সম্পর্কিত পোস্ট