চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বই প্রকাশে পিছিয়ে নেই তরুণরাও

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

অনুপম চৌধুরী

বই প্রকাশে পিছিয়ে নেই তরুণরাও

আশানুরূপ বই বিক্রি হচ্ছে না

নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেশিয়াম চত্বরে দ্বিতীয় বছরের মতো চলছে অমর একুশে বইমেলা। ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৩টার পর থেকে লেখক, প্রকাশক ও পাঠকের আনাগোনায় মুখর থাকে মেলা প্রাঙ্গণ। মেলায় ঘুরে ঘুরে নিজেদের পছন্দের বই কেনেন অনেকে। তবে মেলায় আশানুরূপ বই বিক্রি হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। তারা বলেছেন, মেলার শুরু থেকেই পাঠকদের আনাগোনা ভালোই। এখন ভিড় বাড়লেও বিক্রি তেমন বাড়েনি। সন্ধ্যার পর পাঠকের ভিড় বাড়ে, কিন্তু তেমন বই বিক্রি হচ্ছে না। গতকাল (সোমবার) মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে জানা যায়, তরুণ লেখকদের বইয়ে ভরা স্টলের টেবিলগুলো।

কারও প্রথম গ্রন্থ আবার কারও দ্বিতীয় আবার অনেকের অনেক বেশি। তরুণরা জাতির সম্পদ আবার তরুণরা পারে সবকিছু পরিবর্তন করতে। তেমনি প্রতি বইমেলার মতো এবারের বইমেলায়ও তরুণদের লেখা বইয়ের সংখ্যা কম নয়। এবারের বইমেলাকে কেন্দ্র করে দাঁড়িকমা প্রকাশনী থেকে বের হয়েছে কবি শেখর দেবের ‘পরাণ কথার ঘ্রাণ’। বই সম্পর্কে কবি পূর্বকোণকে বলেনÑ ‘প্রথম বই ছিল কবিতাগ্রন্থÑ প্রতœচর্চার পাঠশালা (২০১৪)। অসাধারণ অনুভূতি ছিল বইটি প্রকাশের। ২০২০-এ প্রকাশিত হয়েছে কবিতাগ্রন্থ ‘পরান কথার ঘ্রাণ। এই বইটি প্রকাশ করে অন্য ধরনের তৃপ্তি পেয়েছি কারণ বইটিতে নিখুঁত ছন্দের কাজ করতে পেরেছি। বইয়ে মূলত ৫০ টা কবিতা আছে, বেশিরভাগ কবিতা অক্ষরবৃত্ত ও মুক্তক অক্ষরবৃত্তে লেখা, কিছু কবিতা মাত্রাবৃত্ত ও গদ্যে লেখা। একটি দীর্ঘ কবিতা আছে মুক্তক অক্ষরবৃত্তে লেখা’।

বইমেলা উপলক্ষে চন্দ্রবিন্দু প্রকাশন থেকে বের হয়েছে গল্পকার রাজীব রাহুলের গল্পগ্রন্থÑ ‘প্রেত চোখের মানুষ’। বই সম্পর্কে তিনি পূর্বকোণকে বলেন, ‘প্রেত চোখের মানুষ’ আমার প্রথম গ্রন্থ। যদিও গল্প নিয়ে অনেক বছর যাবৎ কাজ করছি আর বিভিন্ন প্রত্রিকায় গল্প প্রকাশিত হতো তার ধারাবাহিকতায় এই বই’। মেলা নিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘চসিক আয়োজনে এই মেলা গত বছরের তুলনায় অনেক বড় পরিসরে হচ্ছে সেটা আমাদের জন্য বড় পাওয়া। সামনে আরও বড় মেলা হোক এটাই আশা’।

খড়িমাটি প্রকাশন থেকে বের হয়েছে কবি আজিজ কাজলের কবিতাগ্রন্থÑ ‘বাঁকা হরফের চাঁদ’। তিনি পূর্বকোণকে বলেনÑ ‘দীর্ঘদিন ধরে কবিতার সাথে বাস করছি। অনেক পরীক্ষা-নীরিক্ষা করছি কবিতা নিয়ে। সে সবের কিছুটা আন্দাজ পাওয়া যাবে এই কবিতাগ্রšে’। একই প্রকাশনা থেকে বের হয়েছে গল্পকার আহমেদ মনসুরের গল্পগ্রন্থÑ ‘ঝরা পাতার বাঁশি’। তিনি পূর্বকোণকে বলেন, ‘আমার প্রথম গল্পগ্রন্থÑ ‘নিরাশার গল্প’ ২০১৪ সালে বলাকা প্রকাশন থেকে প্রকাশ পায়। দীর্ঘসময় গল্পের সাথে বসবাস। এবারও এই ‘ঝরা পাতার বাঁশি’ পাঠকের মনে তৃপ্তি দিবে’। মেলা নিয়ে তিনি বলেন, ‘মেলা আয়োজক কমিটির প্রচার কিছুটা কম, যদি আরেকটু প্রচার করা যেত তাহলে বইপ্রেমী দর্শনার্থীর ভিড় আরও বাড়ত। বই বিক্রিও আশানুরুপ হত’।
মেলায় তরুণদের লেখা আরও কিছু বইয়ের মধ্যেÑ জান্নাতুল নুর দিশার উপন্যাস ‘অনিকেত’, সাজিয়া আফরিনের উপন্যাস ‘অসূর্যস্পশ্যা’, মাহমুদ নোমানের উপন্যাস ‘জ্যো¯œা পোড়া ছায়া’ সহ নানা গল্প-কবিতা-উপন্যাসে ভরপুর এবারের বইমেলা।
মায়ের সঙ্গে মেলায় এসেছে শিশু সুমি ও মৃন্ময়ী। ঘুরে ঘুরে ছবি তুলতে দেখা যায় তাদের। মা সুমাইয়া আরা বলেন, শিশুদের নিয়ে বইমেলায় এলে তারা অনেক আনন্দিত হয়। শিশুরা মায়ের ভাষার ইতিহাস জানতে পারে। এখনকার বেশিরভাগ শিশু ভালো বাংলা জানে না। কারণ, অধিকাংশ শিশু ইংরেজি ভার্সনে পড়ালেখা করে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, জাতির শেকড়ের ইতিহাস শিশুদের জানাতে অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে’।
একটি স্টলের বই বিক্রেতা আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘মেলা এখনো তেমন জমে ওঠেনি। তবে প্রতিদিনই ভিড় বাড়ছে। বিকেলে তেমন ভিড় না থাকলেও সন্ধ্যার পর ভিড় হচ্ছে, তবে তেমন বিক্রি হচ্ছে না। বিক্রি বাড়তে পারে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।’
মুজিব বর্ষে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত ২০ দিনব্যাপী বইমেলায় তিনদিনব্যাপী লেখক সম্মিলন শুরু হচ্ছে আজ (মঙ্গলবার)। আগামী বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত নগরের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়াম হলে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬ টায় অনুষ্ঠিত হবে এই লেখক সম্মিলন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 114 People

সম্পর্কিত পোস্ট