চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

কপাল পুড়তে চলেছে চসিকের চার হাজার অস্থায়ী কর্মচারীর

২৯ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:৪১ পূর্বাহ্ণ

ইফতেখারুল ইসলাম

কপাল পুড়তে চলেছে চসিকের চার হাজার অস্থায়ী কর্মচারীর

আউটসোর্সিং নীতিমালা

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রায় চার হাজার অস্থায়ী কর্মচারীর কপাল পুড়তে চলেছে। এসব কর্মচারীর মধ্যে কারো কারো চাকুরির বয়স দুই যুগেরও বেশি। অস্থায়ী থেকে স্থায়ী হওয়ার এত দিনের স্বপ্ন ভঙ্গ হতে চলেছে। আউটসোর্সিং নীতিমালা অনুসরণের তোড়জোড় শুরু হওয়ার কারণে এই সংকট তৈরি হয়েছে। আউটসোর্সিং নীতিমালা অনুসারে ঠিকাদারের মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশনে চাকুরি করতে হবে। এনিয়ে গতকাল মঙ্গলবার তারা অস্থায়ী নগর ভবনে বিক্ষোভও করেছে। মেয়রের আশ্বাসে আপাতত সরে দাঁড়ালেও আউটসোর্সিং নীতিমালা না মানার দৃঢ প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বঞ্চিতরা।

জানতে চাইলে চসিকের প্রধান নির্বাহী মো. সামসুদ্দোহা পূর্বকোণকে বলেন, বিষয়টি সিটি কর্পোরেশনের কোনো সিদ্ধান্ত নয়। সরকার নির্ধারিত কিছু পদ আউটসোর্সিং নীতিমালা পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটি চট্টগ্রামের ক্ষেত্রে নয়, সারাদেশের সিটি কর্পোরেশন সমূহে করা হচ্ছে। সারাদেশের সব কর্মচারীরা যদি সরকারকে তাদের বিষয়টি বুঝাতে সক্ষম হয়, তাহলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কোনো আপত্তি নেই।
সংশ্লিষ্টরা জানান, চসিকে অনুমোদিত ১৯৭৭ সালের জনবলকাঠামো ও পরে নতুন সৃষ্ট ১০৪৬টি পদ অনুসারে মোট শূন্যপদ রয়েছে ১১৪৮টি। তিন দশক ধরে সব ধরণের নিয়োগ বন্ধ থাকার পর জটিলতার অবসান হলে গত ডিসেম্বর থেকে পদোন্নতি ও নিয়োগ শুরু হয়। এসময়ে শূন্যপদগুলো পূরণের জন্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন চেয়ে চিঠি দেয় চসিক। মন্ত্রণালয় অনুমোদন দেয় মাত্র ৬১২টি পদ। তাও হবে সরাসরি নিয়োগের মাধ্যমে। বাকি পদগুলোর বিপরীতে থাকা কর্মচারীদের আউটসোর্সিং নীতিমালা ২০১৮ অনুসারে নিয়োগ দিতে বলা হয়। এসব পদের বিপরীতে রয়েছে প্রায় চার হাজার কর্মচারী। যাদের মধ্যে অনেকের চাকুরির বয়স দুই যুগেরও বেশি। এই সিদ্ধান্ত কার্যকরের তোড়জোড় শুরু করায় কর্মচারীরা আন্দোলনে নেমেছে।

সরাসরি নিয়োগের জন্য অনুমোদিত ৬১২টি পদের মধ্যে প্রথম শ্রেণির রয়েছে ৩২টি, দ্বিতীয় শ্রেণির ২৮টি, তৃতীয় শ্রেণির ৪৮০টি এবং চতুর্থ শ্রেণির ৭২টি। অন্যদিকে চসিকের অনুমোদিত প্রবিধানমালায় পরিচ্ছন্ন সুপারভাইজার এবং বাতি পরিদর্শক পদ দুইটি সরাসরি নিয়োগের কথা থাকলেও ওইপত্রে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে পূরণের কথা বলা হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকালে চসিকের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে কর্মচারীরা বিক্ষোভ করার পর মেয়রের সাথে দেখা করে কথা বলেন, চসিক কর্মচারী শ্রমিক লীগ সভাপতি ফরিদ উদ্দিন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সিটি করপোরেশনে প্রায় ৪ হাজার কর্মচারী অস্থায়ীভাবে ২০০৭ সালের আগে বিভিন্ন সময়ে নিয়োগ হয়। তাদের চাকুরির বয়স ১২ থেকে ২৫ বছর। তিন দশক ধরে নিয়োগ-পদোন্নতি বন্ধ থাকায় তারা সবাই অস্থায়ী ছিল। মেয়রের অক্লান্ত চেষ্টায় সেই জটিলতার অবসান ঘটেছে। কিন্তু এখন সরকারের সিদ্ধান্তে প্রায় চার হাজার কর্মচারী সিটি ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজ করতে হবে। এটা অমানবিক। কারণ এসব কর্মচারী আশা ছিল একদিন তাদের চাকুরি স্থায়ী হবে। আজ সেই আশা ভঙ্গ হতে চলেছে। এখন তাদের স্থায়ী হওয়ার বদলে চাকুরি হারানোর মত কাজ কখনও গ্রহণযোগ্য নয়। মেয়রের সাথে আলাপ হয়েছে। তিনি আশ^াস আশ্বাস দিয়েছেন। না হয় আন্দোলন ছাড়া ভিন্ন কোন পথ থাকবে না। তিনি জানান, সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম ২০১৪ সালে প্রায় এক হাজার চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীকে অস্থায়ী থেকে স্থায়ী করেছেন। তখন নিয়োগ ও স্থায়ীকরণ বন্ধ ছিল। তাহলে এখন এই মেয়র কেন আমাদের দায়িত্ব নিবে না। এখন কেন সরাসরি নিয়োগের কথা বলা হচ্ছে ?

আউটসোর্সিংয়ে যারা থাকছে : ৫টি ক্যাটাগরিতে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে সেবা গ্রহণের কথা বলা হয়েছে। যেখানে প্রথম ক্যাটাগরিতে রয়েছে, চালক (হেভী), সুপারভাইজার, কেয়ারটেকার, ওয়ার্ড মাস্টার, ইলেকট্রিশিয়ান, লিফট মেকানিক, এসি মেকানিক, পাম্প মেকানিক, জেনারেটর মেকানিক, অন্যান্য কারিগরি কাজ সংক্রান্ত টেকনিশিয়ান এবং অনুরূপ কাজের সেবাকে বুঝাবে। দ্বিতীয় ক্যাটাগরিতে চালক (হালকা), স্যানিটারি মিস্ত্রি, রাজমিস্ত্রি, কাঠমিস্ত্রি, রং মিস্ত্রি, পাম্প অপারেটর, এয়ারকন্ডিশন অপারেটর, জেনারেটর অপারেটর, ওয়ারম্যান, ওয়েল্ডার, মিটার রিডার এবং অনুরূপ কাজের সেবাকে বুঝাবে। তৃতীয় ক্যাটাগরিতে সহকারী ইঞ্জিন মেকানিক, টেন্ডল, গ্রিজার, টেইলর, ডুবুরি এবং অনুরূপ কাজের সেবাকে বুঝাবে। চতুর্থ ক্যাটাগরিতে লন্ড্রি অপারেটর, ফরাশ জমাদার, সহকারী ইলেকট্রিশিয়ান, সুকানী, বাবুর্চি, গার্ডেনার, দক্ষ শ্রমিক এবং অনুরূপ কাজের সেবাকে বুঝাবে। পঞ্চম ক্যাটাগরিতে সিকিউরিটি গার্ড, পরিচ্ছন্ন কর্মী, সহকারী বাগানকর্মী, ইলেকট্রিক্যাল হেলপার, কার্পেন্টার, হেলপার, স্যানিটারি হেলপার, পাম্প হেলপার, গাড়ির হেলপার, এসি মেকানিক হেলপার, চৌকিদার, ল্যাব এটেনডেন্ট, ওটি এটেনডেন্ট, ইমার্জেন্সি এটেনডেন্ট, স্ট্রেচার বেয়ারার, ওয়ার্ড বয়, আয়া, সহকারী বাবুর্চি, লিফটম্যান, লাইনম্যান, ফরাশ, লষ্কর, ম্যাসন হেলপার, ম্যাসেঞ্জার, মশালচি, এনিম্যাল এটেনডেন্ট, গেস্ট হাউজ এটেনডেন্ট, হোস্টেল এটেনডেন্ট, ডোম, বাইন্ডার, অদক্ষ শ্রমিক এবং অনুরূপ কাজের সেবাকে বুঝাবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 304 People

সম্পর্কিত পোস্ট