চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের দাবি

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:২৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাইম মুভার শ্রমিকদের ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতি বৃহস্পতিবার থেকে

ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের দাবি

দুই দফা দাবিতে আগামী ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতিতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলার শ্রমিক ইউনিয়ন। তাদের দাবি প্রাইম মুভার ট্রেইলারের ৩৮২ জন ড্রাইভারের পরীক্ষা নিয়ে ভারী শ্রেণির ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়া এবং অন্যান্য ড্রাইভারদের সরাসরি পরীক্ষার মাধ্যমে ভারী শ্রেণির ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের নিশ্চায়তা দিতে হবে। এছাড়া প্রাইম মুভার ট্রেইলার ড্রাইভার ও হেলপারসহ সকল পরিবহন শ্রমিকদেরকে নিয়োগপত্র ও ছবিসহ পরিচয় পত্র প্রদান করতে হবে। গতকাল সোমবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানিয়ে কর্মবিরতির ঘোষণা দেন চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আবু বক্কর ছিদ্দিকী।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, প্রাইম মুভার ট্রেইলার চালকদের মধ্যে ভারী লাইসেন্স থাকলেও এক তৃতীয়াংশ চালকদের রয়েছে হালকা ও মধ্যম শ্রেণির লাইসেন্স। দীর্ঘ ৫/৭ বছর এমনি অনেকে ১০/১২ বছর গাড়ি চালানোর পরেও অনেকে ভারী লাইসেন্স পায় নি। সংশ্লিষ্টদের দুর্নীতি ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে ভারী শ্রেণির লাইসেন্স না পাওয়ায় এসকল চালকদের প্রতিনিয়ত পুলিশি হয়রানি , চাঁদাবাজি ও মামলার শিকার হচ্ছেন।
তিনি আরো জানান, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে এই বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়, পুলিশ প্রশাসন, বিআরটিএ এবং ইউনিয়নের কর্মকর্তা ও ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দসহ বৈঠক হয়। তখন সিদ্ধান্ত হয়েছিল যে সকল প্রাইম মুভার ট্রেলার চালকদের হালকা/ভারী লাইসেন্স আছে এবং তিন বছরের প্রাইম মুভার চালানোর অভিজ্ঞতা আছে তাদের বিবরণসহ নামের লিস্ট মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হবে। সেই তালিকা অনুযায়ী তাদের ভারী লাইসেন্স দেওয়া হবে। পরবর্তিতে একই বছরের মার্চে চালকদের তথ্য বিবরণীসহ নামের লিস্ট চাওয়া হলে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিআরটিএ চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম আঞ্চলিক দপ্তরের উপ পরিচালকের কাছে ৪৫০ জনের নাম দেওয়া হয়। পরে ২০১৯ সালের এপ্রিলে সেই লিষ্ট থেকে মাত্র ৬৮ জনের ভারী লাইসেন্স দেওয়া হয়। এরপর দফায় দফায় অনেক চিঠি দেওয়া হলেও বাকি ৩৮২ জনের ভারী শ্রেণির লাইসেন্স অদ্যাবধি পাওয়া যায় নি।

সংবাদ সম্মেলনে প্রাইম মুভার চালক ও সহকারীসহ সকল শ্রমিকদের নিয়োপত্র ও পরিচয় পত্র প্রদান প্রসঙ্গে আবু বক্কর ছিদ্দিকী বলেন, শ্রম আইনে এই সেক্টরে কর্মরত সকলের নিয়োগ পত্র ও পরিচয় পত্র প্রদানের আইন থাকলেও তা কেউ মানছে না। প্রাইম মুভার মালিক পক্ষ নিয়ম অনুযায়ী কোন ছুটি দিচ্ছে না। দৈনিক ৮ ঘণ্টার পর দ্বিগুণ হারে ওভারটাইম হিসেব করে বেতন ভাতা দেওয়ার বিধান থাকলে তা মালিক পক্ষ মানছে না। উপরন্তু তারা ১৮/২০ ঘণ্টা কাজ করিয়ে নিচ্ছে। এছাড়া বিধান অনুযায়ী প্রাইম মুভারে কর্মরত অবস্থায় কেউ মারা গেলে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না।

তাই এই দুই দফা দাবি আদায়ে আগামী ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ২৪ঘণ্টার কর্মবিরতিতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলার শ্রমিক ইউনিয়ন।
সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. মাইন উদ্দিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন মৃণাল চৌধুরী, মো. রুহুল আমিন, মো. মুছা, অলি আহমদ, মো. মছিউদদৌলা, মো. শফিকুর রহমান, মো. আবদুস সবুর, মো. জামাল রশিদ, মো. সেলিম খান, মো. বেলাল হোসেন, মো. আবুল খায়ের, মো. বাদশা, মো. কায়েস চৌধুরী, মো. রফিকুল ইসলাম রফিক, মো. হাফিজ উদ্দিন ও মো. জহির উদ্দিন খান টিপু প্রমুখ।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 129 People

সম্পর্কিত পোস্ট