চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ফুলকির আনন্দ উৎসবে মঞ্চ মাতালো শিশু শিল্পীরা

২৬ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:২৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফুলকির আনন্দ উৎসবে মঞ্চ মাতালো শিশু শিল্পীরা

‘আমাদের দেশটা স্বপ্নপুরী, সাথী মোদের ফুলপরী, লালপরী, নীলপরী সবার সাথে ভাব করি, সবার সাথে ভাব করি’। এই গানের সাথে দলীয় নৃত্য পরিবেশন করছে একঝাঁক শিশু শিল্পী। গানটি শেষ হতে না হতেই ‘জন্ম আমার ধন্য হল মাগো এমন করে আকুল হয়ে আমায় তুমি ডাক’ দলীয় সংগীতে মুক্তমঞ্চ মুখর করে তুলে আরো একঝাঁক শিশু শিল্পী। এভাবে একের পর এক মঞ্চ মাতিয়ে চলে গান, নাচ, কবিতা আবৃত্তি, অভিনয় আর শিশুদের ফ্যাশন শো। মঞ্চ মাতানো এ খুদে শিল্পীগুলোর মধ্যে অনেকেই অভাবে ঝরে পড়া, পিতৃ-মাতৃহীন, কেউ বা আবার ঠিকানা বিহীন পথশিশু। যাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কিছু সমাজ কল্যানমূলক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও পথশিশুদের বিদ্যালয়। সাথে ছিল নাসিরাবাদ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। অনুষ্ঠানে শিশু শিল্পীরা সততা, সত্য, ন্যায়পরায়ণতা, ভালোবাসা, বিশ্বাস ও সম্মান নিয়ে নানা সচেতনতামূলক নাটক ও গল্প উপস্থাপন করে।

গত বৃহস্পতিবার শিল্পকলা একাডেমির মুক্তমঞ্চে ফুলকির ৪৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিনদিনের ‘শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক উৎসবের’ আয়োজন করে ফুলকি। তিনদিনের এ উৎসব গতকাল শনিবার ছিল তার শেষদিন। ফুলকির এ উৎসবটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বর্ষ ও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশততম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষেও উৎসর্গ করেন। ১ম দিন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন শিশু ছড়াকার ও সাহিত্যিক সঞ্জীব বড়–য়া, রাশেদ রউফ, ওমর কায়সার, সুজন বড়–য়া, বিশ্বজিৎ চৌধুরী, ফুলকি ট্রাস্ট সভাপতি আবুল মোমেন, ফুলকির অধ্যক্ষ শীলা মোমেন, ফুলকির সুহৃদ ফেরদৌস আরা আলীম ও ট্রাস্টের কোষাধ্যক্ষ রীতা দাশগুপ্ত।

এতে অতিথিরা বলেন, উৎসব হল একটি মিলনমেলা। মানুষের মধ্যে এখন বিচ্ছেদ, দূরত্ব, হিংসা, বেড়েই চলছে। তাই এমন পরিস্থিতিতে নানারকম সাংস্কৃতিক উৎসবের অনেক বেশি প্রয়োজন আছে। কারণ এসব সাংস্কৃতিক চর্চা মানুষের মধ্যে কিছু ভালো প্রভাব ফেলে। এতে মনের পরিবর্তন হয়। সাংস্কৃতিমনা মানুষ বরাবরই সুন্দর ও সুস্থ মানসিকতার অধিকারী হয়। আর এমন মানুষ দ্বারাই সুন্দর একটি সমাজ গঠন করা সম্ভব। আমাদের শিশুদের ছোট বেলা থেকে সেই পথেই পরিচালিত করতে হবে।

ফুলকির এ উৎসবে তিন দিনব্যাপী নানা কর্মশালা হয়েছে। পুতুল ও পাপেট তৈরি রং বানানো, ওয়াশ, ছাপচিত্র, মাটির কাজ ও স্ক্রল পেন্টিং। মিলনায়তনে স্লাইডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বিদ্যাসাগরের জীবন ও কর্ম প্রদর্শনী করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করে স্বপ্ননগর, নাসিরাবাদ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উপলব্ধি, বিজয়কেতন ও চারুকলা বিদ্যাপীঠ। অনুষ্ঠানে শিশুদের জন্য বড়দের পরিবেশনায় মুক্তমঞ্চে মঞ্চস্থ হয় নাটক ‘রক্তকরবী’।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 119 People

সম্পর্কিত পোস্ট