চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

গীতার আদর্শ বুকে ধারণ করতে পারলে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণ হবে

২৬ জানুয়ারি, ২০২০ | ২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

স্বামী জ্যোতিশ্বরানন্দ গিরির আবির্ভাব উৎসবে ড. জ্যোতি প্রকাশ দত্ত

গীতার আদর্শ বুকে ধারণ করতে পারলে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণ হবে

চবি অর্থনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. জ্যোতি প্রকাশ দত্ত বলেছেন, ধর্ম চেতনা ও ধর্মবোধ মানুষকে সত্য সনাতন সুন্দরের পথে পরিচালিত করার ফলে সমাজ থেকে অন্যায়-অনাচার দূরীভূত হয়। বিশ্বজনীন ধর্মগ্রন্থ শ্রীশ্রীমদ্ভগবত গীতার কর্ম, জ্ঞান ও ভক্তি মানুষকে নানা অপকর্ম থেকে বিরত রাখে। সত্যিকার অর্থে নিষ্কাম কর্ম এবং অন্ধাকারাচ্ছন্ন পথ থেকে উত্তরণের জন্য মনুষ্যত্বের সাধনা করাই হলো গীতা শিক্ষা। গীতার আদর্শ ও উদ্দেশ্য বুকে ধারণ করতে পারলে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণ হবে। গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জেএমসেন হলে আয়োজিত যোগাচার্য পরমহংস স্বামী জ্যোতিশ্বরানন্দ গিরি মহারাজের ১১১তম আবির্ভাব উৎসবের ধর্ম মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শঙ্কর মঠ ও মিশন, চট্টগ্রাম মহানগর উৎসব উদযাপন পরিষদ উৎসবের আয়োজন করেন।

লায়ন অদুল কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও লায়ন সন্তোষ কুমার নন্দীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ধর্ম মহাসম্মেলনের উদ্বোধন করেন অধ্যক্ষ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন এনজিএস সিমেন্ট লিমিটেডের কর্নধার অসীত কুমার সাহা। মূল ধর্মীয় বক্তা ছিলেন অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্তী। বিশেষ অতিথি ছিলেন অধ্যাপক সুকান্ত ভট্টাচার্য, এডভোকেট চন্দন কুমার দাশ, অনমানন্দ পুরী, সহকারী অধ্যাপক কুশল বরণ চক্রবর্তী ও কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক কেশব কুমার চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লায়ন দিলীপ কুমার শীল, অদুল-অনিতা ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান অনিতা দত্ত, অজিত কুমার শীল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে দেশ-বিদেশের মহাত্মা মহারাজবৃন্দ ও মঠের ভক্তবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। ।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 117 People

সম্পর্কিত পোস্ট