চট্টগ্রাম সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ওয়াসার শেখ রাসেল পানি শোধনাগার উদ্বোধন কাল

২৫ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ওয়াসার শেখ রাসেল পানি শোধনাগার উদ্বোধন কাল

হালদা নদীর তীরে হাটহাজারীর মদুনাঘাট এলাকায় নির্মিত শেখ রাসেল পানি শোধনাগারের উদ্বোধন হচ্ছে কাল রবিবার। দৈনিক নয় কোটি লিটার পরিশোধন ক্ষমতা সম্পন্ন এ প্রকল্পটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে ২০১৮ সালের নভেম্বরে পরীক্ষামুলক ভাবে চালু হয় এ পানি শোধনাগারটি। হালদা নদী থেকে পানি তুলে ৬টি ধাপে পানি পরিশোধনশেষে সরবরাহ লাইনে দেওয়া হয়।
উদ্বোধন পূর্ববর্তী গতকাল শুক্রবার সাংবাদিকদের নিয়ে প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ। এসময় ওয়াসার বোর্ড সদস্য মহসিন কাজী ও ওয়াসার উধ্বর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। তারা প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তুলে নিয়ে কথা বলেন।

ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ বলেন, প্রকল্প এলাকায় না আসলে বুঝা যায় না এখানে কি কর্মযজ্ঞ হয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্প থেকে পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। এখানে পুরো প্রক্রিয়ায় তদারকি করা হয়। নদীর পানি পুরোপুরি বিশুদ্ধ করেই পাইপলাইনে দেয়া হয়।

তিনি বলেন, বর্তমানে চট্টগ্রাম শহরে পানির চাহিদা রয়েছে ৪২ কোটি লিটার। আর আমাদের সক্ষমতা রয়েছে ৩৬ কোটি লিটার। আমরা আরো দুটি প্রকল্পের কাজ হাতে নিচ্ছি। শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার প্রকল্পের ফেস-২ এর কাজ শুরু হয়েছে। শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্পেরও ফেস-২ শুরু হবে।

ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী মাকসুদ আলম বলেন, আমরা হালদা নদী থেকে পানি উত্তোলন করি। তারপর এ পানি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পরীক্ষা করে কি পরিমাণ কেমিক্যাল মেশাতে হবে তা ঠিক করি। ক্যামিক্যাল মেশানোর পর ৬টি ধাপে পানি শোধন করা হয়।
ওয়াসা বোর্ড সদস্য মহসীন কাজি বলেন, ২০০৮ সালে চট্টগ্রাম ওয়াসা মাত্র ১২ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে ওয়াসা বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে ২০২০ সালে ৩৬ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করছে এবং ২০২২ সালে তা ৫০ কোটি লিটার হবে। যা বতমান সরকারের যুগান্তকারী সাফল্য। অথচ ওয়াসার পানির চাহিদা ৪২ কোটি লিটার।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 102 People

সম্পর্কিত পোস্ট