চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

চট্টগ্রামে বিশুদ্ধ পানির চাহিদা মেটাতে ভা-ালজুরী প্রকল্প

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৩:৪২ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামে বিশুদ্ধ পানির চাহিদা মেটাতে ভা-ালজুরী প্রকল্প

চট্টগ্রাম নগরীতে বসবাসরত মানুষের বিশুদ্ধ পানির চাহিদার মিটাতে এবং শিল্প-কারখানায় দরকারি পানি সরবরাহ দিতে ‘ভান্ডালজুরী পানি সরবরাহ’ নামক প্রকল্পের কাজ হাতে নিয়েছে চট্টগ্রাম ওয়াসা। আগামী মার্চে এই মেগা প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। এই প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৩ হাজার ৮০৮ কোটি টাকা। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে যেমন পরিধি বৃদ্ধি পাবে তেমনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের শিল্প-প্রতিষ্ঠানগুলোতেও আসবে গতিশীলতা। প্রাথমিকভাবে ২০২২ সালের মাঝামাঝি সময়ে এর কাজ শেষ হবে বলে মনে করছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে প্রতিদিন ৬০ মিলিয়ন লিটার পানি উৎপাদন সম্ভব হবে।
চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেন, আশা করছি, এ প্রকল্পের কাজ মার্চের শেষের দিকে শুরু হতে পারে। এই কাজ বাস্তবায়িত হলে দক্ষিণ চট্টগ্রামের যেসব শিল্প-প্রতিষ্ঠান রয়েছে এর পানির চাহিদা মিটবে। সবগুলো প্রকল্পের কাজ দ্রুততার সঙ্গে চলছে। নির্ধারিত সময়ের মাঝে প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ করা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন তিনি। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম নগর স¤প্রসারণ ও জেলায় আরও শিল্প-কারখানা গড়ে তোলার পরিকল্পনা আছে সরকারের। আনোয়ারা এখন অর্থনৈতিক অঞ্চল। কিন্তু সেখানে পানির ব্যবস্থা নেই। যেহেতু শিল্প-কারখানা সেখানে অবশ্যই পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। সবকিছু মিলিয়ে ওইসব এলাকায় পানি সরবরাহ জরুরি। ওয়াসা সূত্রে জানা যায়, নগরবাসীর সেবার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি দক্ষিণ চট্টগ্রামের শিল্প-কারখানায় সুপেয় পানি সরবরাহের উদ্যোগ নেয়। এ প্রকল্পে বাস্তবায়নে খরচ হবে ৩ হাজার ৮০৮ কোটি টাকা।
বোয়ালখালী উপজেলার ভান্ডালজুরী পানি সরবরাহ প্রকল্প থেকে দৈনিক উৎপাদিত ৬ কোটি লিটার পানির মধ্যে বেশির ভাগ পানি সরবরাহ হবে পটিয়া শিল্প এলাকা ও কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ তীরে অবস্থিত কোরিয়ান ইপিজেড এলাকায়। এছাড়া কর্ণফুলী নদীর বামতীরে অবস্থিত কাফকো, সিইউএফএল, বোয়ালখালী উপজেলার ভান্ডালজুরী নামক স্থানে ৬০ মিলিয়ন লিটার ক্ষমতার ভূ-উপরিস্থ পানি শোধনাগার নির্মাণ ও পাইপলাইন স্থাপন কাজ করা হবে। নগরীর কালুরঘাট শিল্প এলাকায় সরবরাহ দেওয়া হবে এ প্রকল্পের উৎপাদিত পানি। এরই মধ্যে প্রকল্পটির ঋণ চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। এর মাধ্যমে শিল্প-কারাখানাসহ স্থানীয়দের সুপেয় পানির চাহিদাও পূরণ হবে।
চট্টগ্রাম ওয়াসা বেশ কয়েকটি প্রকল্প সফলতার মুখ দেখায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যপরিধি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতদিন নগরবাসীর সেবা দিয়ে এলেও এবার দক্ষিণ চট্টগ্রামের শিল্প-কারখানা ও এলাকাবাসীর মাঝে সুপেয় পানি সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। দক্ষিণ চট্টগ্রামের আনোয়ারা ও পটিয়ায় কেইপিজেড, দেশের অন্যতম বৃহৎ সারকারখানা কাফকো, শিকলবাহা বিদ্যুৎকেন্দ্র ও বেসরকারি সাদ মুসা শিল্পপার্কসহ বিভিন্ন শিল্প-কারখানা রয়েছে। কিন্তু সেসব এলাকায় ওয়াসার পানির সরবরাহ নেই।
এছাডা সুপেয় পানির ব্যবস্থা না থাকায় তৃতীয় শাহ আমানত সেতুর দক্ষিণ পাড়ে সিডিএ’র কর্ণফুলী আবাসিক এলাকায় দুই দশকেও বসতি গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। ওই এলাকার ভূগর্ভস্থ পানিতে অতিরিক্ত আয়রন ও লবণ থাকায় তা ব্যবহার করা যায় না। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে এ আবাসিক এলাকায় পানি সরবরাহ করা হবে। এ প্রকল্পের পানি সরবরাহ করা হবে নগরের কালুরঘাট শিল্পাঞ্চলেও।
প্রকল্পের বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়াসার প্রকৌশলী তত্ত্বাবধায়ক আরিফুল ইসলাম বলেন, প্রকল্পটির কাজ মার্চ মাসের শেষের দিকে শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি বলেন, নগরবাসীর চাহিদার পাশাপাশি দক্ষিণ চট্টগ্রামের মানুষের মাঝে সুপেয় পানির পৌঁছে দিতে পারব। তিনি বলেন, ভান্ডালজুড়ি প্রকল্প থেকে পানি আসবে ৬ কোটি লিটার এবং মোহরা পানি সরবরাহ প্রকল্পে দ্বিতীয় পর্যায় থেকে আসবে ৯ কোটি লিটার। প্রকল্পের পরিচালক মাহবুবুল আলম বলেন, প্রকল্পটি নিয়ে আমরা আশাবাদী। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে দক্ষিণ চট্টগ্রামে গড়ে ওঠা শিল্প-কারখানার পাশাপাশি এলাকাবাসী পানি পাবে। এর আগে বাংলাদেশ সরকার ও জাইকার যৌথ অর্থায়নে ১ হাজার ৮৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের আত্ততায় পানি শোধনাগার নির্মাণ করা হচ্ছে। যা ২০১৭ সালের ১২ মার্চ শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার নামে প্রকল্পটির উদ্বোধন করা হয়। বর্তমানে এ শোধনাগার থেকে নগরীতে দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 287 People

সম্পর্কিত পোস্ট